June 18, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

পোল্ট্রি খাতে আরও ৫ বছর কর অবকাশ সুবিধা চায় এফআইএবি

নিজস্ব প্রতিবেদক : গ্রামীণ জীবন-জীবিকা নির্ভর সুস্বাস্থ্য ও পুষ্টির যোগানদাতা শিল্প হওয়ায় পোল্ট্রি শিল্পের জন্য দেওয়া কর অবকাশ সুবিধা ২০১৯ সাল পর্যন্ত অব্যাহত চায় এ শিল্প সংশ্লিষ্টদের সংগঠন ফিড ইন্ডাস্ট্রিজ অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ (এফআইএবি)।

একইসঙ্গে পোল্ট্রি, ফিস ও গবাদি পশুর খাদ্য দ্রব্যের আয়ের ওপর ৩ শতাংশ কর মওকুফ চেয়েছে সংগঠনটি।

আসন্ন ২০১৫-১৬ অর্থবছরের বাজেটকে সামনে রেখে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে (এনবিআর) পাঠানো প্রস্তাবনায় এসব দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ স্বাক্ষরিত প্রস্তাবনায় বলা হয়েছে, দেশীয় শিল্প উদ্যোক্তাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে এ দেশে পোল্ট্রি শিল্প অনেক এগিয়েছে। এই খাতে বর্তমানে বিনিয়োগের পরিমাণ ২৫ হাজার কোটি টাকার বেশি। ৬০ থেকে ৭০ লাখ গ্রামীণ মানুষ এ শিল্পে সরাসরি জড়িত।

এতে বলা হয়েছে, উদীয়মান ও গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর জীবন-জীবিকা নির্ভর শিল্প হওয়ায় এ শিল্পকে কর অবকাশ সুবিধা দিয়েছে সরকার। এ সুবিধা নিয়ে তৈরি হয়েছে নতুন নতুন পোল্টি খামার ও ফিড উৎপাদন কারখানা; গড়ে উঠেছে ব্যক্তি উদ্যোগে ছোট ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও। ফলে এ খাতে কর্মসংস্থান হয়েছে ৫০ লাখের বেশি মানুষের। তবে সরকারের কর অবকাশ সুবিধার মেয়াদ ২০১৫ সালের জুন মাসে শেষ হয়ে গেলে বিপদে পড়বে এ খাত সংশ্লিষ্ট সবাই। তাই বিরাট এক জনগোষ্ঠীর কথা চিন্তা করে এ খাতে কর অবকাশ সুবিধা ২০১৯ সাল পর্যন্ত অব্যাহত করা দরকার।

বিদ্যমান ৩ শতাংশ আয়কর প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে প্রস্তাবনায় বলা হয়েছে, বাংলাদেশের কৃষিকে প্রতিনিয়ত প্রাকৃতিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক প্রতিকূলতার মধ্যে টিকে থাকতে হয়। রাজনৈতিক বৈরি পরিবেশের কারণে দেশীয় বিনিয়োগকারীরা বিদেশি বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে অসম প্রতিযোগিতার সম্মুখীন হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে আয়কর প্রত্যাহার না করা হলে এ শিল্পের চলমান প্রক্রিয়া বাধাগ্রস্ত হবে।

বাজেট প্রস্তাবনায় সংগঠনটি জানিয়েছে, পোল্ট্রি ফিড ও ফিস ফিড উৎপাদনের প্রধান উপকরণ ভূট্টা। ভুট্টা থেকে ফিড উৎপাদনের আগে আমদানির সময়ই ৫ শতাংশ অগ্রিম আয়কর দিতে হয় সরকারকে। অগ্রিম আয়কর দেওয়ার পর অনেক সময়ই দেখা যায় তা ব্যবসায়ীদের বাৎসরিক আয়করের চেয়ে অনেক বেশি হয়ে যায়। আবার যাদের ওপর আয়কর প্রযোজ্য নয় তাদেরও এ কর দিতে হয়। ফলে লোকসান দিতে হয় অনেক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীকে।

এমতাবস্থায় এ খাতে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের মুনাফার ওপর অতিরিক্ত করের বোঝা দূর করতে ও আয়করের অযোগ্য করদাতাদের হয়রানি বন্ধে অগ্রিম আয়কর প্রত্যাহার করা দরকার দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

এছাড়া কৃষি পণ্যের কাঁচামাল হিসেবে পোল্ট্রি ও ফিস ফিডের কাঁচামাল ফিড এডিটিভিস, মোড়ক, খুচরা যন্ত্রাংশ, লাইম স্টোন ও ক্যালসিয়াম কার্বোনেটসহ সব ধরনের কাঁচামাল আমদানিতে শুল্ক যৌক্তিক করার দাবি জানিয়েছে এফআইএবি।