September 19, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

বাসযাত্রীরা ধরে ফেললেন নবজাতক চোরকে

নিজস্ব প্রতিবেদক : চুরি করা এক নবজাতককে নিয়ে গৌলজান বেগম (৪৫) সম্ভাব্য ক্রেতার কাছে যাচ্ছিলেন বাসে করে। বাসে নবজাতক কোলে ওই নারীকে দেখে সন্দেহ হয় অপর যাত্রীদের। একপর্যায়ে সবাই ধরে ফেলেন যে তিনি ওই শিশুটির কেউ নন। পরে সচেতন যাত্রীরা তাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। এ ঘটনায় উদ্ধার করা হয়েছে ওই ছেলে নবজাতককে।

সোমবার বেলা ৩টার দিকে গৌলজানকে আটকের কথা নিশ্চিত করেন পল্টন থানার ডিউটি অফিসার এসআই মনিবুর রহমান। তিনি জানান, গৌলজান বেগম দুপুরে যাত্রাবাড়ীর ধলপুর থেকে গাবতলী যাওয়ার জন্য ৮ নম্বর বাসে ওঠেন। এসময় তার পোশাক-পরিচ্ছেদ ও কতাবার্তায় সন্দেহ হলে অপরাপর যাত্রীরা তাকে চ্যালেঞ্জ করে। ঘটনার একপর্যায়ে বাসের তাকে পল্টন থানায় সোপর্দ করে। পরে পুলিশি নিরাপত্তার মাধ্য দিয়ে ওই নারী ও নবজাতককে ঢামেক হাসপাতালে নেয়া হয়।

এর আগে থানায় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গৌলজান বেগম দাবি করেন, ফরিদপুরের নগরকান্দা এলাকায় তার ভাই ওয়াদুদের বাড়ি। তার কোনও বাচ্চা নেই। সেই ভাইয়ের জন্যই এই বাচ্চাটিকে ধলপুর এলাকার আক্তার হোসেনের মাধ্যমে ২০ হাজার টাকায় কিনে নিয়ে যাচ্ছিলেন তিনি।

তবে প্রত্যক্ষদর্শীদের অনেকেই মনে করছেন, গৌলজান দাবিদার ওই নারী নিজেই শিশু চোরচক্রের সদস্য। ঢামেক হাসপাতালে উপস্থিত আমিনুল নামে এক প্রত্যক্ষদর্শীর মতে, পুলিশ গৌলজানকে রিমান্ডে নিলেই সব তথ্য বেড়িয়ে আসবে। শিশু অপহরণের সঙ্গে জড়িত এ ধরনের জঘন্য অপরাধীদের ছাড় দেয়া উচিৎ নয়।

শিশুটির মা-বাবার সন্ধান এখনও পাওয়া যায়নি। তাকে হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডের তত্ত্বাবধানে রাখা হয়েছে। ঢামেক ২১১ নম্বর শিশু ওয়ার্ডের কর্তব্যরত চিকিৎসক সুমন জানান, বাচ্চাটি এখন ভালো আছে। তাকে বিশেষ পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।