October 23, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

টুজি থ্রিজি তরঙ্গ নিলাম স্থগিত, সংশোধন হচ্ছে নীতিমালা

নিজস্ব প্রতিবেদক : দাবি পূরণ না হওয়ায় মোবাইল অপারেটরদের অংশ নিতে অপারগতা প্রকাশের মধ্যে বাড়তি টুজি ও থ্রিজি তরঙ্গ (স্প্রেক্ট্রাম) নিলাম আপাতত স্থগিত করেছে টেলিযোগাযোগ খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) বুধবার অপারেটরদের কাছে পাঠানো এক চিঠিতে বলেছে, তরঙ্গ নীতিমালা সংশোধন করে নতুন নীতিমালা ও পরবর্তীতে নিলামের সময় জানানো হবে।

চিঠিতে জানানো হয়েছে, বিরাজমান পরিস্থিতিতে তরঙ্গ নিলামের নীতিমালা সংশোধন করা হচ্ছে। এজন্য গত ২২ ফেব্রুয়ারি তরঙ্গ নিলামের যে নোটিশ জারি করা হয়েছিল তা বাতিল করা হল। শিগগিরই নিলামের নতুন নীতিমালা ও নিলামের সময় জানানো হবে।

বাড়তি টুজি (১৮০০ মেগাহার্জ) ও থ্রিজি (২১০০ মেগাহার্জ) তরঙ্গ (স্প্রেক্ট্রাম) নিলামের সময় ৩০ এপ্রিল থেকে পরিবর্তন করে ২০ মে নেওয়া হয়েছে। এরপর আরেক দফা পিছিয়ে তা নেওয়া হয় ২৭ মে।

আমাদের দেশে বর্তমানে ২ হাজার ১০০ মেগাহার্টজের মাধ্যমে থ্রিজি সেবা দিতে পারে অপারেটররা। আর ৯০০ ও ১৮০০ মেগাহার্টজে টুজি সেবা দেয়।

নিলাম অনুষ্ঠানের নীতিমালা অনুযায়ী, ১ হাজার ৮০০ মেগাহার্টজের জন্য নিলামের ভিত্তিমূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে তিন কোটি মার্কিন ডলার বা ২৩২ কোটি টাকা। ২ হাজার ১০০ মেগাহার্টজের ভিত্তিমূল্য ধরা হয়েছে ২ কোটি ২০ লাখ ডলার বা প্রায় ১৭০ কোটি টাকা।

১৮০০ মেগাহার্টজে ব্যান্ডে ১০ দশমিক ৬ ও ২১০০ মেগাহার্টজ ব্যান্ডে ১৫ মেগাহার্টজ তরঙ্গ অব্যবহৃত রয়েছে। এ তরঙ্গের নিলাম হওয়ার কথা ছিল।

মোবাইল কোম্পানিগুলো বিভিন্ন দাবি-দাওয়া পূরণ সাপেক্ষে নিলামে অংশ নেওয়ার বিষয়টি জানিয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের কাছে ১ মার্চ চিঠি পাঠায়। অপারেটরদের দাবি-দাওয়ার মধ্যে রয়েছে- সিমকার্ড প্রতিস্থাপন কর সংক্রান্ত মামলার সমাধান, নিলামে বিক্রি হওয়া তরঙ্গমূল্যের ওপর ধার্য করা মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) প্রত্যাহার, বিদ্যমান টেলিযোগাযোগ আইন সংশোধন, তরঙ্গ ব্যবহারে স্বাধীনতা নিশ্চিত করাসহ বিভিন্ন বিষয়।

ওই চিঠিতে সই করেন গ্রামীণফোনের পক্ষে টেলিনরের প্রেসিডেন্ট ও গ্রুপ প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) জন ফ্রেডরিক বাকসাস, বাংলালিংকের পক্ষে ভিম্পেলকমের সিইও জো লানডার, রবির আজিয়াটা গ্রুপ বারহাদের প্রেসিডেন্ট ও গ্রুপ সিইও দাতো জামালউদ্দিন ইব্রাহিম, এয়ারটেল বাংলাদেশের পক্ষে ভারতী এয়ারটেলের চেয়ারম্যান সুনীল মিত্তাল।

অমিমাংসীত দাবি-দাওয়া নিয়ে গত ১৮ মার্চ মোবাইল ফোন অপারেটরের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদের (সিইও) সঙ্গে বৈঠক করেন বিটিআরসির চেয়ারম্যান সুনীল কান্তি বোস। ওই বৈঠকেও অপারেটররা দাবিগুলো পূরণে চেয়ারম্যানকে অনুরোধ জানান। এছাড়া তারা আসন্ন নিলামে অংশ নেবেন না বলেও জানান।