October 22, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

নতুন পে স্কেলের জন্য ১৩ হাজার কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক : সরকারি খাতে নতুন বেতন কাঠামো বাস্তবায়নে আগামী অর্থবছরের বাজেটে প্রায় ১৩ হাজার কোটি টাকা অতিরিক্ত বরাদ্দের প্রস্তাব করা হবে বলে অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে। বর্ধিত বেতন কাঠামো ১ জুলাই থেকেই কার্যকর হতে পারে। সূত্র জানায়, চলতি সপ্তাহের মধ্যেই পে-কমিশনের পর্যালোচনা প্রতিবেদন জমা দেবে সচিব কমিটি।

জানা গেছে, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব মোশাররাফ হোসেন ভূইঞার নেতৃত্বে গঠিত পাঁচ সদস্যের সচিব কমিটি সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য বিভিন্ন ধাপে পে-কমিশনের প্রস্তাবের চেয়ে গড়ে ১০ শতাংশ কম বেতন নির্ধারণের প্রস্তাব করেছে।

এর আগে গত ডিসেম্বরে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিনের নেতৃত্বে গঠিত পে-কমিশনের মূল প্রতিবেদনে সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য শতভাগ বেতন বৃদ্ধির সুপারিশ করা হয়।

তাদের সুপারিশ পর্যালোচনা করতে এ বছরের জানুয়ারিতে গঠন করা হয় সচিব কমিটি। এই কমিটি তাদের পর্যালোচনা প্রতিবেদন চূড়ান্ত করেছে।

সূত্র জানায়, আসন্ন বাজেটে সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন-ভাতা বাবদ মোট বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে ৪২ হাজার ১৫৮ কোটি টাকা। বর্তমানে এ খাতে বরাদ্দ রয়েছে ২৯ হাজার ৩২১ কোটি টাকা। অর্থাৎ বর্ধিত বেতন কাঠামো বাস্তবায়নের জন্য আগের চেয়ে অতিরিক্ত অর্থ লাগবে ১২ হাজার ৮৮৩ কোটি টাকা।

দুই ধাপে নতুন বেতন কাঠামো বাস্তবায়ন করবে সরকার। সে মোতাবেক প্রথম ধাপ বাস্তবায়নে আগামী বাজেটে উল্লিখিত অর্থ বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। সরকারি চাকরিজীবীদের পেছনে এখন বছরে যে খরচ হয়, তা মোট দেশজ উৎপাদন বা জিডিপির আড়াই শতাংশ। নতুন বেতন কাঠামো কার্যকর হলে এটি জিডিপির ৩ শতাংশ ছাড়িয়ে যাবে।

বর্তমানে সরকারি চাকরিজীবীর সংখ্যা প্রায় ১৪ লাখ। তবে এমপিওভুক্ত শিক্ষক, স্বায়ত্তশাসিত, আধা স্বায়ত্তশাসিত, উন্নয়ন প্রকল্পে নিয়োজিত চাকরিজীবীরা এ হিসাবের বাইরে। সূত্র জানায়, তারা সবাই সরকারি কোষাগার থেকে নিয়মিত বেতন-ভাতা পাচ্ছেন। সে হিসাবে বর্তমানে সরকারি কোষাগার থেকে নিয়মিত মাসিক বেতন পাচ্ছেন ২১ লাখ কর্মকর্তা-কর্মচারী।