September 28, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

মঙ্গলযাত্রা নিয়ে আইডিয়া দিন, নাসার পুরস্কার জিতে নিন

অনলাইন ডেস্ক : বাঁচতে চাইলে নাকি এই পৃথিবী ছাড়তেই হবে। সম্প্রতি আরেকবার এই সতর্কবার্তা দিয়েছেন জীবন্ত কিংবদন্তি স্টিফেন হকিং। তিনি বলেছেন, ‘পাড়ি জমাও মহাকাশে। নইলে চিরনিশ্চিহ্ন হয়ে যেতে হবে পুরো মানবজাতিকে।’

পৃথিবী ছেড়ে মানুষ আর কোথায় যেতে পারে? তালিকায় সবচেয়ে কাছের যে বাড়িটা, তার নাম মঙ্গল; সৌরজগতের লালগ্রহ।

মঙ্গলে একদিন মানুষের পা পড়বেই— এ লক্ষ্যে অবিরাম কাজ করে যাচ্ছে মহাকাশ গবেষণা সংস্থাগুলো। অগ্রগামীদের অন্যতম যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা।

নাসার বাঘা বাঘা বিজ্ঞানীরা দিনরাত গবেষণা করে যাচ্ছেন মঙ্গল অভিযাত্রা নিয়ে। সেই সঙ্গে তরুণদের সৃজনশীল কল্পনার সহযোগিতা প্রত্যাশা করছে সংস্থাটি।

মঙ্গলে মানুষের যাত্রাকে মসৃণ করতে, লালগ্রহে মানুষের উপস্থিতিকে প্রাণবন্ত ও নির্ঝঞ্ঝাট করতে কী করা যেতে পারে— এ সব নিয়ে একটি প্রতিযোগিতা চালু করেছে নাসা।

অভিনব আইডিয়ার জন্য তিনজনকে পুরস্কৃত করা হবে। মঙ্গলযাত্রা নিয়ে সৃজনী ও প্রয়োগসাপেক্ষ ধারণা দেওয়ার জন্য প্রতিজনকে দেওয়া হবে পাঁচ হাজার ডলার করে।

বুধবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য দিয়েছে নাসা। এতে বলা হয়, নাসা যুতসই মঙ্গলযাত্রা বিষয়ে নতুন এই প্রতিযোগিতার ঘোষণা দিয়েছে মঙ্গলবার।

মঙ্গলে অবিচ্ছিন্নভাবে মানুষ পাঠানোর জন্য কী কী করা উচিত, স্বাপ্নিক তরুণদের থেকে সে সব জানতেই এই প্রতিযোগিতার আয়োজন বলে উল্লেখ করা হয় ওই বিবৃতিতে।

একদিন মঙ্গলেও জল ছিল। শিল্পীর কল্পনায় সৌরজগতের লালগ্রহ। ছবি : নাসা গোডার্ড স্পেস ফ্লাইট সেন্টার।

মঙ্গলে আশ্রয়, খাদ্য, জল, শ্বাসযোগ্য বাতাস, বাসযোগ্য পরিবেশ, যোগাযোগ ব্যবস্থা, শারীরিক অনুশীলন, সামাজিক মিথস্ক্রিয়া এবং চিকিৎসা— ইত্যাদি হতে পারে কল্পনার ক্ষেত্র।

তবে এ সবের বাইরে নতুন ও ভিন্নতর এবং উদ্ভাবনী ও সৃজনী বিষয় সম্পর্কে জানতে আগ্রহী কর্তৃপক্ষ। এমনটাই বলেছে নাসা।

মঙ্গল জয়ের এমন রঙিন স্বপ্ন পূরণে অবশ্য কয়েকটা বিষয় মাথায় রেখে কল্পনা করতে বলা হয়েছে। যেমন- কল্পযাত্রা যেন যথাসম্ভব বিদ্যমান প্রযুক্তিতে সারা যায়, তুলনামূলক কম ব্যয়সাধ্য হয় এবং পৃথিবী থেকে পুরো ব্যবস্থাটা যতটা সম্ভব যেন কম নিয়ন্ত্রণ করতে হয়।

আইডিয়ার প্রাসঙ্গিকতা ও এটা কতটা সরল, এর প্রয়োগযোগ্যতা ও সম্ভাবনা ইত্যাদি সূচককে মাথায় রেখে বিচার করবেন বিচারকরা। পাশাপাশি প্রতিযোগীর সৃজনশীলতাকেও প্রাধান্য দেওয়া হবে।

৭ জুন ২০১৫-এর মধ্যে আইডিয়া জমা দিতে হবে। প্রতিযোগিতায় কীভাবে অংশগ্রহণ করবেন কিংবা অন্যান্য সব তথ্য জানতে ঢু মারুন এই ঠিকানায় : go.nasa.gov/1JONps3