October 22, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

আমার কঠোর সমালোচনা করুন হাসিমুখে গ্রহণ করবো : নাছির

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : আমাকে সমর্থন ও সহযোগিতা দিন। আমি ভুল করলে নি:সংকোচে আমাকে জানান। আমাকে পরামর্শ দিন। আমার সমালোচনা করুন। কঠোর সমালোচনা করুন। আমি হাসিমুখে গ্রহণ করবো। তবে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে আরেকজনের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে সমালোচনা করবেন না। বিভ্রান্তি থাকলে সরাসরি আমার সঙ্গে যোগাযোগ করবেন। আমাকে দায়ী করবেন, অভিযুক্ত করবেন। আমি যদি আপনাদের বিবেচনা না করি, তাহলে আপনারা আপনাদের সিদ্ধান্ত নেবেন এ কথা জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন।

সোমবার দুপুরে নগরীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত গণসংবর্ধনায় মেয়র এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, আমি স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, আমি আ জ ম নাছির উদ্দিন একা নই। আমার সফলতা-ব্যর্থতার সঙ্গে আওয়াম লীগ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুনাম-মর্যাদা জড়িত। আমাকে নিয়ে অনেকে শংকা প্রকাশ করেছিলেন, অনেক ধারণা ছিল। কিন্তু, আমি নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হওয়ার পর আপনারা দেখেছেন, আমি সবাইকে নিয়ে চলেছি। একইভাবে মেয়রের দায়িত্ব নেয়ার পরও আমি সবাইকে নিয়ে শতভাগ আন্তরিকতা, সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে চলব।

মেয়রের বেতন-ভাতা গ্রহণ না করার ঘোষণা পুর্নব্যক্ত করে নাছির আরও বলেন, আমি বনেদি পরিবারের সন্তান। আপনারা অনেকেই হয়তো জানেন না, উত্তরাধিকার সূত্রে আমি যে সম্পদ পেয়েছি এখানকার কোনো আওয়ামী লীগ নেতারই নেই। আমি একজন সফল ব্যবসায়ী। আমার যা আছে নতুন করে আর কিছু আমি পাবার আশা করিনা। আমি যে প্রতিশ্রুতি মানুষকে দিয়েছি জীবন দিয়ে হলেও সেই প্রতিশ্রুতি পূরণ করব। কারণ আমার সফল হওয়ার বিকল্প নেই। পাঁচ বছরে ইনশল্লাহ আমি সফল হবই।

দলীয় কাউন্সিলরদের উদ্দেশ্যে মেয়র বলেন, আমি জিরো টলারেন্স নিয়ে সিটি কর্পোরেশন পরিচালনা করব। আমি ত্যাগের মানসিকতা নিয়ে এসেছি। আমার আর পাওয়ার কিছু নেই। যারা পেতে চান তারা এখান থেকে সরে যান। আমার কাছে কেউ আপন কেউ পর নন। যারা নিষ্ঠার সাথে কাজ করবেন তারাই আমার আপন।

কর্মকর্তা-কর্মচারিদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদের বেতনের বাইরে আর কোনো টাকার দিকে দৃষ্টি দেবার সুযোগ নেই। বেতনে যদি আপনি সন্তুষ্ট না থাকেন, তাহলে সিটি কর্পোরেশন ছেড়ে চলে যেতে পারেন।

গণসংবর্ধনায় সভাপতিত্ব করেন সাবেক মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী। নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মাহতাবউদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন নাগরিক কমিটির সভাপতি ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য ইছহাক মিয়া, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নূরুল আলম চৌধুরী, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমেদ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য ড.ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী, নগর মহিলা লীগের সভানেত্রী হাসিনা মহিউদ্দিন, নগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আফতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, ১৪ দলের পক্ষে ন্যাপ নেতা আলী আহমেদ নজির, বিএমএ’র চট্টগ্রাম শাখার সভাপতি মুজিবুল হক খান এবং কাউন্সিলর চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী।