June 23, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

জয়ললিতা বেকসুর খালাস

বিদেশ ডেস্ক : হিসাব বহির্ভূত সম্পত্তি অর্জন মামলা থেকে বেকসুর খালাস পেয়েছেন তামিলনাড়ুর সাবেক মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতা। কর্ণাটক হাইকোর্ট সোমবার তাকেসহ তার চার সহযোগীকে এ মামলা থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন। তবে এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবে মামলার বাদীরা।

রায়ের পরপরই আদালতের বাইরে এবং তামিলনাড়ুতে উল্লাসে ফেটে পড়ে এআইএডিএমকে সমর্থকরা। জয়ললিতার বাসভবনের সামনে উৎসবে মেতে ওঠে দলের সমর্থকরা। সংসদেও এআইএডিএমকে সাংসদরা একে অপরকে মিষ্টি খাইয়ে আনন্দে মেতে ওঠেন।

উল্লেখ্য, সেপ্টেম্বরে জয়ললিতাকে দোষী সাব্যস্ত করে চার বছরের কারাদণ্ড দেন বেঙ্গালুরুর বিশেষ আদালত। এরপরই মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে তাকে পদত্যাগ করতে হয়।
এ রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন এআইএডিএমকে সুপ্রিমো। এ রায় বহাল থাকলে আগামী বিধানসভা নির্বাচনে জয়ললিতা নির্বাচনের দাঁড়াতে পারতেন না। কিন্তু এখন তার সে পথ খুলে গেল।

আট মাসের জামিনে মুক্ত হয়ে কারাগারের বাইরে ছিলেন তামিলনাড়ুর ‘আম্মা’ খ্যাত এ নেত্রী। রায় ঘোষণার দুদিন আগে থেকেই ‘আম্মা’র ভক্তরা প্রার্থনায় বসে যায়। তামিলনাড়ুর বিভিন্ন উপসনালয়ে জয়লতিতার ভক্তদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো।

জয়ললিতা মামলা থেকে বেকসুর খালাস পাওয়াতে তার দল অল ইন্ডিয়া আন্না ডি এমকের বিজয় অনেকটা নিশ্চিত হলো। কারণ তামিল নাডুতে জয়ললিতার জনপ্রিয়তা আকাশচুম্বী।

প্রসঙ্গত, ২০১৪-র সেপ্টেম্বরে, ৬৬ কোটি ৬৫ লাখ টাকার হিসাব বহির্ভূত সম্পত্তি মামলায় দোষী সাব্যস্ত হন জয়ললিতা। তার সঙ্গে আরো দোষী সাব্যস্ত করা হন জয়ার পালিতপুত্র সুধাকরণ, বান্ধবী শশিকলা নটরাজন এবং আত্মীয় ইলাভরসন। বেঙ্গালুরুর বিশেষ আদালত জয়াসহ বাকি অভিযুক্তদের চার বছরের কারাদণ্ড এবং ১০০ কোটি টাকা জরিমানার নির্দেশ দিয়েছিলেন।