June 22, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

নবনির্বাচিত মেয়রদের সংবর্ধনা দিলো এফবিসিসিআই

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়রদের সংবর্ধনা দিলো ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন ফেডারেশন অফ বাংলাদেশ চেম্বার্স অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাষ্ট্রি (এফবিসিসিআই)।

সোমবার রাজধানীর কাকরাইল আইডিইবি ভবনে ঢাকা উওর ও দক্ষিণ সিটি  কর্পোরেশনের  নবনির্বাচিত মেয়র আনিসুল হক এবং সাঈদ খোকনকে  এ সংবর্ধনা  দেওয়া হয়।

এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন নতুন দুই মেয়রের কাছে দাবি জানিয়ে বলেন, রাজধানীর ফুটপাত থেকে হকার মুক্ত করতে হবে। একই সঙ্গে হকাদের জন্য হলিডে মার্কেটসহ তাদের পুর্নবাসন করতে হবে। যানজট নিরসনের পাশাপাশি নর্দমা পরিস্কারসহ মশা মুক্ত ঢাকা চাই।

তিনি বলেন, নির্বাচিত মেয়ররা তাদের ইস্তেহারে যেসব প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তা যদি বাস্তবায়ন করেন তাহলে নগরবাসীর জীবনের সমস্যা থাকবে না।

বাংলাদেশ উইমেনস চেম্বারের সভাপতি সেলিমা আহমেদ বলেন, চাঁদাবাজি বন্ধ করতে হবে। পুলিশ ও সন্ত্রাসের নির্যাতন বন্ধ করতে হবে।

ব্যবসায়ীদের জন্য একটি হেল্প ডেক্স চালু করতে হবে। যেন ব্যবসায়ীরা কোনো সমস্যায় পরলে ফোন করে সাহায্য নিতে পারে। একই সঙ্গে ট্রেড লাইসেন্স ফি কমানোর দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, আগের ৫০০ টাকার ফি এখন পাঁচ হাজার টাকা করা হয়েছে। যা সম্পূর্ণ অযোক্তিক।

সাঈদ খোকন বলেন, সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আমরা জবাবদিহিতার কাঠগড়ায় দাঁড়িয়েছি। মেয়রদের দায়িত্বে সীমাবদ্ধতা রয়েছে। ৫৬টি অধিদফতর এবং সংশ্লিষ্ট ২০টি মন্ত্রনলায়কে নিয়ে নগর উন্নয়নে কাজ করতে হয়। এখানে সমন্বয়ের ঘটতি ছিল বরাবরই। আমরা সঠিকভাবে সমন্বয় করেই নগরের উন্নয়ন করবো।

তিনি বলেন, নগরবাসীর মাঝে এক লাখ ৪৩ হাজার ব্যাগ দেওয়া হবে। যাতে নির্দিষ্ট জায়গায় ময়লা ফেলতে পারে।

তিনি আরও বলেন, আগামী শবে বরাতের আগে ঢাকার রাস্তায় লাইট শতভাগ জ্বালোনোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে ইতিমধ্যেই।

ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে সাঈদ খোকন বলেন, ঢাকা দক্ষিণের উন্নয়নে লক্ষ্যে যদি কোনো ব্যবসায়ী অব-কাঠামো খাতে বিনিয়োগ করতে চায়, তাহলে তাদের সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে। বিশেষ নিরাপত্তা দেয়া হবে।

আনিসুল হক বলেন, ঢাকাকে হয়তো তিলোত্তমা বানানো যাবে না, কিন্তু সুন্দরী বানানোর চেষ্টা করা যেতে পারে। আমরা সেই চেষ্টাই করে যাবো। আমরা দুই মেয়র এক সঙ্গে কাজ করতে পারলে ঢাকাকে একটি আধুনিক নগরী গড়া সম্ভব। এজন্য ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা প্রয়োজন। কারণ ব্যবসায়ীদের করের টাকাতেই সিটি কর্পোরেশনকে চলতে হয়।

তিনি বলেন, ঢাকার ফুটপাট একদিনে দখলমুক্ত করা সম্ভব নয়। ফুটপাতের ব্যবসায়ীরা ওই ছোট্ট দোকানের ওপর আয় করে বেঁচে থাকেন। তাদের পুনর্বাসন না করে উচ্ছেদ করলে হিতে বিপরীত হতে পারে। সংশিষ্ট সবার সঙ্গে কথা বলেই এই সমস্যার সমাধান করা হবে।

আনিসুল হক বলেন, ব্যবসায়ী এবং নগরবাসী যদি সহায়তা করেন তাহলে পাঁচ বছর পর জনগণের কাছে গিয়ে জবাবদিহিতা করতে কোনো দ্বিধা কাজ করবে না।

এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন এফবিসিসিআইয়ের সহ-সভাপতি হেলাল উদ্দিন, এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক এম এ মোমেম ও আবু আলম চৌধুরী প্রমুখ।