June 22, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

মেসি সর্বকালের সেরা ফুটবলার : গার্দিওলা

ক্রীড়া ডেস্ক: বার্সেলোনার কাছে সেমিফাইনালে দুই লেগ মিলিয়ে ৫-৩ ব্যবধানে পিছিয়ে থেকে চ্যাম্পিয়নস লীগের ফাইনাল থেকে ছিটকে পড়েছে বায়ার্ন মিউনিখ। জার্মান বুন্দেসলিগা চ্যাম্পিয়ন দলটির কোচ পেপ গার্দিওলা গতকাল সেমিফাইনালের ম্যাচ শেষে বলেছেন, লিয়নেল মেসি তার দেখা সর্বকালের সেরা খেলোয়াড়।
বায়ার্ন বস বলেন, ‘সেই সর্বকালের সেরা ফুটবলার। আমি তাকে পেলের সাথে তুলনা করি, তার খেলা দেখার সৌভাগ্য হওয়ায় আমি দারুন খুশী।’
এবারের মৌসুমে বার্সেলোনার হয়ে দারুন সময় কাটানো মেসির দুই গোলেই মূলত প্রথম লেগে ৩-০ গোলে পরাজিত হয়ে বায়ার্নের চ্যাম্পিয়নস লীগের ফাইনালে খেলার আশা শেষ হয়ে গিয়েছিল। ইউরোপের সর্বোচ্চ এই আসরে এবার মেসি একাই করেছেন ১০ গোল। অষ্টমবারের মত ইউরোপীয়ান কাপের ফাইনালে বার্সেলোনাকে নিয়ে যাবার পিছনে আর্জেন্টাইন এই তারকাই মূল কারিগর হিসেবে কাজ করেছেন। নিজের দুই বছরের মেয়াদে একবারও বায়ার্নকে চ্যাম্পিয়নস লীগের শিরোপা উপহার দিতে পারেননি গার্দিওলা। অথচ ২০০৮ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত বার্সেলোনায় চার বছরের দায়িত্বে ২৭ বছর বয়সী মেসিকে নিয়ে দুইবার চ্যাম্পিয়নস লীগের শিরোপা জিতেছেন গার্দিওলা। তার মতে, মেসি আবারো তার সেরা ফর্মে ফিরে এসেছে। আমি যখন তার সাথে কাজ করেছি তখনো সে দূর্দান্ত ছিল।
সর্বশেষ ২০১১ সালে গার্দিওলার অধীনে বার্সেলোনার হয়ে শিরোপা জিতেছিলেন মেসি। এবারের লা লিগায় এখন পর্যন্ত তিনি ৪০ গোল করেছেন। লা লিগার শিরোপার দ্বারপ্রান্তে থাকা কাতালানরা এবারের মৌসুমে ট্রেবল জয়ের বেশ কাছাকাছি পৌঁছে গেছে। মঙ্গলবারের সেমিফাইনালের ম্যাচটিতে মেসি যতটা না বেশী গোলের পিছনে দৌঁড়েছেন তার থেকে বেশী নেইমার ও লুইস সুয়ারেজকে দিয়ে গোল করানোতে বেশী সচেষ্ট ছিলেন। বার্সেলোনার সাবেক খেলোয়াড় গার্দিওলা বলেছেন, ‘বার্সেলোনা যখন বল পায় তখন তারা অতিকায় শক্তিশালী দলে পরিণত হয়। আশা করছি বার্লিনে তারা পঞ্চমবারের মত ইউরোপীয়ান কাপের শিরোপা জিতবে। আমরা সবকিছুই চেষ্টা করেছি। কিন্তু দলে বেশ কয়েকটি ইনজুরি সমস্যা ছিল। গত দুই মাস যাবত এত সমস্যা নিয়ে একটি ক্লাব যখন এতদুর পর্যন্ত যায় তখন তারা প্রশংসা পেতেই পারে।’
দলের দুই তারকা উইঙ্গার আরিয়েন রবেন এবং ফ্র্যাংক রিবেরি ছাড়াও ডিফেন্ডার ডেভিড আলাবা এবং হলগার বাস্টুবার ইনজুরির কারনে খেলতে পারেননি। তারপরেও ২-১ গোলে পিছিয়ে থেকে ঘরের মাঠে ৩-২ গোলে বার্সেলোনাকে হারানোকেই বড় প্রাপ্তি হিসেবে দেখছে সংশ্লিষ্টরা। ইউরোপীয়ান আসর থেকে ছিটকে পড়ার অর্থ হচ্ছে এবারের মৌসুমে বায়ার্নকে শুধুমাত্র বুন্দেসলিগার শিরোপা নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হচ্ছে । গার্দিওলা বলেছেন বায়ার্নের খেলোয়াড়রা অনেক সময়ই জানে না তারা কতটা ভাল। এখন আমি লীগের শিরোপা উৎসব করতে চাই, ছুটিতে যেতে চাই এবং আশা করছি পরের মৌসুমটা আরো ভালভাবে কাটাতে পারবো। অনেক সমস্যার মধ্যেও আমরা যে ভেঙ্গে পড়িনি এটাই আমাদের সবচেয়ে বড় কৃতিত্ব।