October 23, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

আসছে দৈত্যাকৃতির ক্রিকেটার

ক্রীড়া ডেস্ক : একজন ক্রিকেটারের ওজন ও উচ্চতা বড় জোড় কত হতে পারে? বর্তমান সময়ের আন্তর্জাতিক ও ঘরোয়া ক্রিকেটে সবচেয়ে দীর্ঘদেহী ক্রিকেটারের নাম মোহাম্মদ ইরফান। পাকিস্তানের এই পেস বোলারের উচ্চতা ৭ ফুট ১ ইঞ্চি। তিনি শুধু বর্তমানেরই নন, সর্বকালের সবচেয়ে লম্বা ক্রিকেটারও বটে। তবে তাকেও হার মানাতে ক্রিকেট বিশ্বে আসছেন একজন দৈত্যাকৃতির ক্রিকেটার।
নাম তার রাকিম কর্নওয়াল। মাত্র ২২ বছর বয়সী ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই ক্রিকেটারের উচ্চতা ৬ ফুট ১১ ইঞ্চি। উচ্চতার কথা শুনে অবাক না হলেও তার ওজনের কথা শুনলে অবাক না হয়ে পারবেন না। তার ওজন ২১১ কেজি! উচ্চতা আর ওজনের মতো তার পারফরম্যান্সও ইতিমধ্যে চোখে লেগেছে অনেকের। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পরবর্তী তারকা ভাবা হচ্ছে তাকে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট রাকিমের এখনো অভিষেক না হলেও ইতিমধ্যে তিনি বেশ আলো ছড়িয়েছেন। ঘরোয়া ক্রিকেট ও ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে বল ও ব্যাট হাতে দারুণ অলরাউন্ডিং পারফরম্যান্স করছেন দীর্ঘদেহী এই ক্রিকেটার।
অ্যান্টিগুয়া হকসবিলের হয়ে ২০১৪-১৫ ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (সিপিএল) বেশ ভালোই তার উচ্চতা ও ওজনের প্রতি সুবিচার করেছেন। ঘরোয়া ক্রিকেটে লিওয়ার্ড আইসল্যান্ডস ক্রিকেট টিমের হয়ে দারুণ পারফরম্যান্স করেছেন। তার বিভ্রান্তিকর অফ স্পিন দিয়ে জ্যামাইকার সাত-সাতটি উইকেট তুলে নিয়েছিলেন। ত্রিনিদাদ এন্ড টোবাগোর বিপক্ষে ৮৪ বলে অপরাজিত ১০১ রানের ইনিংস খেলেছিলেন। যেখানে ১১টি চার ও ৬টি ছক্কার মার ছিল। চলতি মৌসুমের শুরুর দিকে গায়নার বিপক্ষে তার ক্যারিয়ারের সেরা বোলিং ফিগার অর্জন করেন। ৯৬ রান দিয়ে ৭ উইকেট নেওয়ার কৃতিত্ব দেখান। সাত ম্যাচে তার ব্যাটিং গড় ছিল ২৭.৪৬। আর ২৯ উইকেট নিয়ে বোলিং গড় ছিল ২৬.৯৩। যা তাকে মৌসুমের শীর্ষস্থানীয় অলরাউন্ডারের তালিকায় স্থান দিয়েছে।
তার বিষয়ে লিওয়ার্ডসের কোচ রিডলি জ্যাকবস বলেন, ‘খুবই মেধাবী। তার বয়সী খুব কম খেলোয়াড়ের মধ্যেই আমি এমন প্রতিভা দেখেছি।’ তবে রাকিমের অতিরিক্ত ওজনটাকে তিনিও একটি সমস্যা হিসেবে দেখছেন, ‘ওজন কমানোর জন্য তার যা প্রয়োজন হবে আমরা তাকে সব ধরনরে সহযোগিতা ও পরামর্শ দেব। তবে দিনশেষে সেগুলো কাজে লাগানোটা তার ব্যাপার।’ ১৯৯৩ সালের ১ ফেব্রুয়ারি ওয়েস্ট ইন্ডিজের অ্যান্টিগুয়াতে জন্ম গ্রহণ করেন রাকিম কর্নওয়াল। ২০১১ সালে ১৩ জানুয়ারি ত্রিনিদাত এন্ড টোবাগোর বিপক্ষে লিওয়ার্ড আইসল্যান্ডসের হয়ে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে তার অভিষেক হয়। ইতিমধ্যে তিনি ১৬টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। ব্যাট হাতে রান করেছেন ৮৫। আর বল হাতে নিয়েছেন ১৪ উইকেট। তার সেরা বোলিং ফিগার ১০ রানে ৩ উইকেট। লিওয়ার্ডের হয়ে ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে জ্যামাইকার বিপক্ষে প্রথম শ্রেণরি ক্রিকেটে তার অভিষেক হয়।
ইতিমধ্যে তিনি ৭টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলেছেন। রান করেছেন ৩৫৭টি। সর্বোচ্চ ইনিংস অপরাজিত ১০১ রান। বল হাতে নিয়েছেন ২৯ উইকেট। সেরা বোলিং ফিগার ৯৬ রানে ৭ উইকেট। ২০১৫ সালে লিস্ট এ ক্রিকেটে তার অভিষেক হয়। ৭টি ম্যাচ খেলে তিনি ব্যাট হাতে ১৭৬ রান করেছেন। সর্বোচ্চ ইনিংস অপরাজিত ১১৩ রান। বল হাতে নিয়েছেন ৩ উইকেট। হয়তো অচিরেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তার আগমন ঘটবে। আর যেদিন তার অভিষেক হবে সেদিন ক্রিকেট বিশ্ব সবচেয়ে বেশি ওজনের দীর্ঘদেহী ক্রিকেটারকে দেখতে পাবে।