June 18, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

ইভিএম নিয়ে ‘বিব্রত’ ইসি

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) তাদের সর্বশেষ চিঠিতে নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে ইভিএম ব্যবহারে চুক্তি লঙ্ঘনের অভিযোগ করেছে। এতে বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

গত ৭ মে নির্বাচন কমিশনের মেনটেইন্যান্স ইঞ্জিনিয়ার মো. ইকবাল জাভীদ বিআরটিসি পরিচালককে ফের চিঠি দিয়ে ইভিএমের কারিগরি ক্রটি পরীক্ষা করে একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ প্রতিবেদন জরুরি ভিত্তিতে পাঠানোর অনুরোধ জানান। একই সঙ্গে চুক্তি লঙ্ঘনের অভিযোগের ব্যাখ্যাও দেন তিনি।

চিঠিতে বলা হয়- ইভিএম ফেরত পাঠানোয় নির্বাচন কমিশন বিব্রত অবস্থায় পড়েছে। রাজশাহীতে ব্যবহৃত কন্ট্রোল ইউনিটে কখনোই দেশীয় ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়নি। এখানে কীভাবে দ্বিপক্ষীয় চুক্তি লঙ্ঘন হয়েছে তা বোধগম্য নয়।

এর আগে নারায়ণগঞ্জ ও নরসিংদীতে বুয়েটের অধ্যাপক এসএম লুৎফুল কবীরের তত্ত্বাবধানে ইভিএমে বিদেশি ব্যাটারি ব্যবহার করার পরও একই সমস্যা দেখা দেয় এবং তা দিয়ে ভোট গণনা সম্ভব হয়নি বলে কমিশনের চিঠিতে উল্লেখ করা হয়। ২০১০ সালে ইভিএমের যাত্রাকালে বুয়েটের আইআইসিটির পরিচালক এ শিক্ষকই অগ্রণী ভূমিকা রাখেন।

এক চিঠিতে বুয়েটের পক্ষ থেকে বলা হয়- ইভিএমের পাওয়ার সাপ্লাইয়ের জন্য দেশীয় বা লোকাল ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে, যা দ্বিপক্ষীয় চুক্তির স্পষ্ট লঙ্ঘন। তাই এ কন্ট্রোল ইউনিট সঠিকভাবে কাজ না করার কারণ চিহ্নিত করার বিষয়টি চুক্তির বাইরে চলে যায়। এ বিষয়ে বুয়েটের পক্ষে মন্তব্য করা সমীচীন হবে না এবং কন্ট্রোল ইউনিটটি কমিশনে ফেরত পাঠানো হয়।

কমিশন বুয়েটকে জানিয়েছে, ২০১২ সালের ২০ ডিসেম্বর রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ইভিএমে দেশীয় ব্যাটারি ব্যবহার করে কোনো ক্রটি দেখা যায়নি। ভোট নেয়া ও গণনাতেও অসুবিধা হয়নি। রাজশাহীর ইভিএমের ক্রটিও ব্যাটারিজনিত নয় বলে প্রতীয়মান হয়েছে।

নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের তথ্যপ্রযুক্তি শাখার সিস্টেম ম্যানেজার রফিকুল হক বলেন, কমিশনের অবস্থান তুলে ধরে পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে বুয়েটকে। আশা করি, এবার সন্তোষজনক সাড়া পাব আমরা। গত ১৮ মার্চ ঢাকা উত্তর, দক্ষিণ ও চট্টগ্রাম নির্বাচনের তফসিল দেয়ার সময়ও প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ চার সিটি নির্বাচনের সময় ইভিএমে সমস্যা দেখা দেয়ার কথা বলেছিলেন। সমস্যার সমাধান না হওয়া পর্যন্ত ইভিএম ব্যবহার করা হবে না বলেও সে সময় জানান তিনি।