September 17, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

বার্সেলোনাকে ২৩তম লা লিগা শিরোপা উপহার দিলেন মেসি

আন্তজাতিক ডেস্ক: লিয়নেল মেসির গোলে এ্যাথলেটিকো মাদ্রিদকে ১-০ গোলে হারিয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখেইে সাত বছরে পঞ্চমবার এবং সব মিলিয়ে ২৩তম লা লিগা শিরোপা জয় করেছে বার্সেলোনা।
ঠিক এক বছর আগের এই দিনেই বার্সেলোনার ঘরের মাঠ ক্যাম্প ন্যুতে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে বার্সেলোনার থেকে লা লিগার ট্রফিটি ছিনিয়ে নিয়েছিল এ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ। আর এবার আবারো দুই দলের মুখোমুখি ম্যাচেই বার্সেলোনা তাদের শিরোপা নিশ্চিত করলো। এবারের মৌসুমে প্রথম থেকেই ট্রেবল জয়ের স্বপ্নে বিভোর কাতালানরা এর মাধ্যমে চলতি বছরের প্রথম শিরোপা দখল করে নিল। আগামী ৩০ মে ঘরের মাঠে কোপা ডেল রে’র ফাইনালে লুইস এনরিকের দল এ্যাথলেটিকো বিলবাওয়ের মোকাবেলা করবে। আর এর এক সপ্তাহ পরে বার্লিনে চ্যাম্পিয়নস লীগের ফাইনালে ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাসের বিপক্ষে মাঠে নামবে বার্সা।
ম্যাচ শেষে বার্সা কোচ এনরিকে বলেছেন, ‘ক্লাবে বেশ কিছু পরিবর্তন নিয়ে আমরা ১০ মাস আগে এবারের মিশন শুরু করেছিলাম। কোন কিছু ছাড়াই এবারের মৌসুমটা শুরু করাটাও আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জিং ছিল। আমরা জানতাম এটা আমাদের পুনর্জাগরনের মৌসুম এবং আমরা আমদের সেরাটা দেবার চেষ্টাই করেছি। এখনো আমাদের সামনে দুটি শিরোপা অপেক্ষা করছে। তবে বর্তমানের শিরোপাটা নিয়ে এই মুহূর্তে আমরা উৎসব করতে চাই।’
এদিকে দিনের অপর ম্যাচে ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোর হ্যাটট্রিকে রিয়াল মাদ্রিদ এস্পানেয়লের বিপক্ষে ৪-১ গোলে বড় জয় তুলে নিয়েছে। এবারের মৌসুমে প্রথম থেকে শিরোপার অন্যতম শক্তিশালী দাবীদার হয়ে এগিয়ে গেলেও শেষের দিকে এসে বার্সেলোনার সাথে আর পেরে উঠেনি গ্যালাকটিকোরা। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে গত সপ্তাহে জুভেন্টাসের কাছে সেমিফাইনালে পরাজিত হয়ে চ্যাম্পিয়নস লীগ থেকে বিদায় নেবার পরে লা লিগায় আবারো নিজেদের দারুনভাবে ফিরিয়ে নিয়ে আসা। এটি ছিল রিয়ালের হয়ে রোনাল্ডোর ৩০তম হ্যাটট্রিক। এক ম্যাচ হাতে রেখে বার্সেলোনার থেকে এখনো চার পয়েন্ট পিছিয়ে রয়েছে লস ব্ল্যাঙ্কোসরা।
বার্সেলোনার কাছে পরাজিত হওয়ায় আগামী মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লীগের গ্রুপ পর্বে তৃতীয় স্থান নিয়ে উপস্থিত হতে হলে শেষ ম্যাচে এ্যাথলেটিকোকে অন্তত এক পয়েন্ট পেতেই হবে। তবেই লীগ টেবিলে তৃতীয় স্থান নিশ্চিত হবে। সেল্টা ভিগোর সাথে ভ্যালেন্সিয়া ঘরের মাঠে ১-১ গোলে ড্র করায় দিয়েগো সিমেয়োনের দলের সামনে এই পরিসংখ্যান হাজির হয়েছে। ৭৭ পয়েন্ট নিয়ে এ্যাথলেটিকো বর্তমানে রিয়ালের পরে তৃতীয় স্থানে রয়েছে। ৭৪ ও ৭৩ পয়েন্ট নিয়ে পরের দুটি স্থানে রয়েছে যথাক্রমে ভ্যালেন্সিয়া ও সেভিয়া।
ভিসেন্টে ক্যালডেরোনের মাঠে ৩০ ডিগ্রী তাপমাত্রার গরমের মধ্যে শুরু হওয়া ম্যাচটিতে শুরুতে খুব একটা চমক না থাকলেও বার্সার তুলনায় স্বাগতিকরাই ভাল খেলতে থাকে। কর্ণার থেকে হোসে মারিয়া গিমেনেজের হেড তালু দিয়ে দারুনভাবে রক্ষা করেন বার্সা গোলরক্ষক ক্লডিও ব্র্যাভো। কিছুক্ষন পরেই এন্টোনিও গ্রিয়েজম্যানের আরেকটি প্রচেষ্টা অসাধারণ দক্ষতায় রুখে দেন এই চিলিয়ান গোলরক্ষক। যদিও ফ্রেঞ্চম্যান গ্রিয়েজম্যানের বিপক্ষে অফ সাইডের পতাকা উঠিয়েছিলেন লাইন্সম্যান। আধাঘন্টা পার হবার পরে বার্সা আক্রমনের ধার বাড়ায়। মেসির দুটি প্রচেষ্টা আটকে দেন স্লোভেনিয়ান গোলরক্ষক জান ওবলাক। এরপর বার্সেলোনার দুটি পেনাল্টির আবেদন রেফারী আলবার্তো উনদিয়ানো মালেনকো নাকচ করে দিলে সফরকারীরা ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। মেসির হেডের বলটি হুয়ানফ্র্রানের হাতে লাগার পরে বার্সেলোনা পেনাল্টির আবেদন করে। ৩২ মিনিটে দিয়েগো গোডিন গোল এরিয়ার কাছাকাছি ডানি আলভেসকে ফেলে দিলে কাতালানদের সেই আবেদনও আমলে নেননি রেফারী। বক্সের বাইরে গোডিনের এই ফাউলের কারনে রেফারী তাকে হলুদ কার্ড দিয়ে সতর্কও করে দিয়েছিলেন। সেই ফাউলের বিপরীতে প্রাপ্ত ফ্রি-কিক থেকে মেসির কার্লিং শট অল্পের জন্য ক্রসবার দিয়ে বাইরে চলে যায়।
দ্বিতীয়ার্ধ শুরুর সাথে সাথে এ্যাথলেটিকো আরো একটি সেট-পিস আক্রমন থেকে গোল প্রায় পেয়েই গিয়েছিল। কিন্তু দিয়েগো গোডিনের হেড লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। এবারের মৌসুমে বেশ কয়েকটি ম্যাচে বরাবরের মতই ত্রাতা হয়ে ওঠা মেসি কালকেও নিজেকে এগিয়ে নিয়ে যাবার সব চেষ্টাই করেছেন। ৬৫ মিনিটে অবশেষে ডেডলক ভাঙ্গেন মেসি। পেড্রোর পাস থেকে গোলপোস্টের কাছ থেকে বল জালে জড়ালে স্বস্তি ফিরে আসে বার্সেলোনা শিবিরে।
নিজে গোলে সুযোগ নেবার পাশাপাশি সতীর্থদের দিয়েও গোল করানোর চেষ্টায় মেসি সর্বক্ষন ব্যস্ত ছিলেন। তারই ধারাবাহিকতায় নেইমারকে একটি দারুন বল বাড়িয়ে দিয়েছিলেন। কিন্তু ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড ওবলাককে একা পেয়েও ব্যবধান দ্বিগুন করতে পারেননি।