October 23, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

মোদিকে ধন্যবাদ তবে ফারাক্কা যেন এক নম্বর ইস্যু হয়: বদরুদ্দোজা

নিজস্ব প্রতিবেদক : ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ধন্যবাদ জানিয়ে সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রফেসর ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেছেন, মোদির এবারের বাংলাদেশ সফরে ফারাক্কা যেন এক নম্বর ইস্যু হয়।

শুক্রবার দুপরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে ভাসানী অনুসারী পরিষদ আয়োজিত ফারাক্কা লংমার্চ দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

বদরুদ্দোজা বলেন, “ছিটমহলের যে সমস্যার সমাধান সম্প্রতি হলো এটিকে কিছু মানুষের সংখ্যার হিসেবে ফেললে চলবে না। ভাবতে হবে, কতগুলো মানুষের দীর্ঘদিনের যন্ত্রণার অবসান হলো। মোদিকে এজন্য ধন্যবাদ জানাই, তবে এবারে মোদির বাংলাদেশ সফরে ফারাক্কার পানি ইস্যু যেন এক নম্বর ইস্যু হয়।”

সব দেশের সাথে ভালো সম্পর্ক চাই জানিয়ে তিনি বলেন, “ভারতসহ সব দেশের সাথেই আমরা সুসম্পর্ক চাই। কিন্তু সে সম্পর্ক যেন মাথানত করার না হয়। সরকার জোয়ার-ভাটা বুঝতে পারছে না। আজকে যারা রাজনীতিতে আছে তারাও বুঝতে পারছে না। কিন্তু ইতিহাস সাক্ষ্য দেয়, কেউ টেকেনি।”

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমেদের উদ্দেশে তিনি বলেন, “৫ জানুয়ারির চেয়ে ভয়াবহ নির্বাচন করে, দাঁত বের করে হাসতে হাসতে তিনি বলেন, ‘কয়েকটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে।’ তার মতো শিক্ষিত লোকজন এ ধরনের কথা বলে বলেই দেশের অবস্থা আজ কোথায় গিয়ে দাঁড়িয়েছে তা আপনারা বুঝছেন।”

সাগরে ভাসমানদের ব্যাপারে তিনি বলেন, “নেপাল সরকার যথেষ্ট সহযোগিতা করেছে। কিন্তু সাগরে যে দশ হাজার মানুষ ভাসছে তাদের ব্যাপারে সরকার কী করছে? তাদেরকে উদ্ধার করতে সরকার কি একটি উড়োজাহাজ পাঠিয়েছে? এ অবস্থায় ভাসানী থাকলে তিনি একটি উড়োজাহাজের দাবি করে বলতেন, আমাকে ওখানে পাঠানোর ব্যবস্থা করো।”

সাগরে যা হচ্ছে তা আমাদের জন্য লজ্জার মন্তব্য করে বদরুদ্দোজা বলেন, “অনেকে বলতে পারেন তারা রোহিঙ্গা। কিন্তু তারা কি মানুষ না? জাতিসংঘ, যুক্তরাষ্ট্র, ক্যাম্বোডিয়া, ইন্দোনেশিয়া সাহায্য করতে পারে অথচ আমরা কী করলাম?”

ভাসানী অনুসারী পরিষদের নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. জসিম উদ্দীনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, সাবেক মন্ত্রী মোস্তফা জামাল হায়দার, সাংবাদিক আমানুল্লাহ কবির প্রমুখ।