June 22, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

রাজস্ব আদায়ে করের আওতা বাড়ছে

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক : রেকর্ড বাজেটের রাজস্ব আদায়ে ২০১৫-১৬ অর্থ বছরের বাজেটে করের আওতা বাড়াতে যাচ্ছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। তবে কমাতে পারেন কর্পোরেট কর। এছাড়া বাড়তে পারে ব্যক্তিশ্রেণির করমুক্ত আয়ের সীমা ও ন্যূনতম করের পরিমাণ।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের বাজেট শাখার একটি সূত্র বলছে, প্রায় পৌনে দুই লাখ কোটি টাকার রাজস্ব আদায়ে করের আওতা বাড়ানোর কোন বিকল্প হাতিয়ার নেই মুহিতের কাছে।বর্তমানে ব্যক্তিশ্রেণি করমুক্ত আয়ের সীমা বার্ষিক ২ লাখ ২০ হাজার টাকা। গত দুই অর্থবছরে করমুক্ত সীমা অপরিবর্তিত রয়েছে। আগামী বাজেটে এ সীমা ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা করা হতে পারে। বর্তমানে ন্যূনতম করের পরিমাণ ঢাকাসহ বিভাগীয় শহর ও সিটি কর্পোরেশন এলাকায় বসবাসরত সামর্থ্যবান করদাতাদের জন্য বছরে ৩ হাজার টাকা, এর বাইরে জেলা শহরের জন্য ২ হাজার টাকা ও উপজেলার জন্য ১ হাজার টাকা নির্ধারিত রয়েছে। এটি ৪ হাজার টাকা হতে পারে।

বর্তমানে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত পাবলিক লিমিটেড কোম্পানির কর্পোরেট করহার ৩৫ শতাংশ। জানা গেছে, আগামী বাজেটে এই হার ২ শতাংশ কমতে পারে। এছাড়া তালিকাভুক্ত কোম্পানির ক্ষেত্রে বিদ্যমান সাড়ে ২৭ শতাংশ করহার ২ শতাংশ কমতে পারে।

মোবাইল ফোন সেট আমদানিতে শুল্ক, মূল্য সংযোজন কর দিতে হয়। এই পণ্য আমদানিতে বর্তমানে যে পরিমাণ শুল্ক নেওয়া হয়, তার সঙ্গে অতিরিক্ত ৫ শতাংশ অগ্রিম আয়কর আরোপ করা হতে পারে।

বর্তমানে সরকারি চাকরিজীবীরা মূল বেতন বাবদ যে টাকা পান, তার ওপর কর দেন। মূল বেতনের বাইরে ভাতা থেকে যে আয় হয় তা করমুক্ত। নতুন বাজেটে মূল বেতনের সঙ্গে ভাতাও করের আওতায় আসতে পারে।

বর্তমানে ২ কোটি টাকার বেশি সম্পদ হলে আয়করের পাশাপাশি তাকে নির্ধারিত হারে বাড়তি `সারচার্জ` দিতে হয়। সূত্র জানায়, আসন্ন বাজেটে এখানে কিছুটা ছাড় দেওয়া হতে পারে। জানা গেছে, সোয়া দুই কোটি টাকা পর্যন্ত সম্পদের জন্য সারচার্জ দিতে হবে না। এর বেশি সম্পদ থাকলে বর্তমানের মতোই ১০ শতাংশ হারে অতিরিক্ত সারচার্জ দেওয়ার প্রস্তাব করবেন মুহিত।

আগামী ৪ জুন সংসদে ২০১৫-১৬ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণা করবেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। নতুন বাজেটের সম্ভাব্য আকার প্রায় ৩ লাখ কোটি টাকা। এর মধ্যে ৯৭ হাজার কোটি টাকার নতুন বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) ইতিমধ্যে অনুমোদন দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ।