June 25, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

মালয়েশিয়ার ১৩৯ কবর অভিবাসীদেরই

বিদেশ ডেস্ক : থাইল্যান্ড সীমান্তবর্তী মালয়েশিয়ায় সন্ধান পাওয়া ১৩৯টি কবর অভিসাবীদের বলে নিশ্চিত করেছেন মালয়েশিয়ার পুলিশ প্রধান খালিদ আবু বকর। তিনি আরও জানিয়েছেন, ওই এলাকায় সন্ধান পাওয়া ২৮টি বন্দিশিবিরও মানবপাচারে ব্যবহৃত হতো।

ওই সব কবর থেকে উদ্ধার হওয়া কয়েকটি কঙ্কাল ও কিছু অঙ্গ পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর আজ মঙ্গলবার পুলিশ বিষয়গুলো নিশ্চিত হয়েছে বলে জানান তিনি।

খালিদ আবু বকর আর জানান, মালয়েশিয়া পুলিশ ও বর্ডার গার্ডের লম্বা অভিযানে সীমান্তবর্তী এলাকায় এই কবরগুলোর সন্ধান পাওয়া গেছে। কয়েকটি কবর থেকে হাড় ও কঙ্কাল উদ্ধার করা হয়েছে। এসব কবরের অধিকাংশ মরদেহের হাড় ও চামড়া নষ্ট হয়ে গেছে; অনেক জায়গায় পচনও ধরেছে।

ধারণা করা হচ্ছে, প্রায় ২ সপ্তাহ আগে পাচারকারীরা এলাকাটি পরিত্যাগ করে গেছে।

পুলিশ প্রধান বলেন, বন্দিশিবিরের বেড়া এবং নিরাপত্তা চৌকি দেখে মনে হচ্ছে, সেখানে অভিবাসীদের আটকে রাখা হতো।

মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম বার্নামাকে তিনি জানান, ২০১৩ সাল থেকে এই এলাকার বন্দিশিবিরগুলো অভিবাসীদের জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। মানবপাচারকারীরা কয়েক সপ্তাহ আগে সর্বশেষ ব্যবহৃত ২/৩টি বন্দিশিবির পরিত্যাগ করেছে।

তিনি আরও জানান, শনাক্তকৃত ১৩৯টি কবরের সবকটিতে মানুষের দেহাবশেষ আছে কি না- তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। কারণ এখনও কবর খননের কাজ চলছে।

কবর থেকে উদ্ধারের পর শেষকৃত্যের আগে মরদেহগুলোর ময়নাতদন্ত করা হবে বলেও জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, গত মাসে মালয়েশিয়া সীমান্তবর্তী থাইল্যান্ডের শংখলা জেলায় একটি গণকবরের সন্ধান পাওয়া যায়। ওই গণকবরে বহু মানুষের কঙ্কাল পাওয়া গেছে। এরপর মানবপাচারে জড়িত সন্দেহে ওই জেলার মেয়রকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মিয়ানমারের অবহেলিত রোহিঙ্গারা গত কয়েক বছর ধরে সমুদ্রপথে ঝুঁকি নিয়ে মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া ও থাইল্যান্ডে যাওয়ার চেষ্টা করছেন। বাংলাদেশ থেকেও কাঠের নৌকা বা মাছ ধরার ট্রলারে করে মালয়েশিয়ায় যাওয়ার চেষ্টার ঘটনা ঘটছে।

গত মাসের শেষে থাইল্যান্ডের জঙ্গলে গণকবর পাওয়ার পর মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া ও থাইল্যান্ড উপকূলে সাগরে ভাসমান অবস্থায় পাচারকারীদের কয়েকটি নৌকা থেকে ৩ হাজারের বেশি মানুষকে উদ্ধার করা হয়।

সূত্র: সিএনএন