June 23, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

গারো নারী ধর্ষণের বিচার দাবিতে ৭ দিনের আল্টিমেটাম

নিজস্ব প্রতিবেদক :  অবিলম্বে গারো নারী ধর্ষণের সঙ্গে জড়িত সবাইকে গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন, বাংলাদেশ গারো ছাত্র সংগঠন, বাংলাদেশ হাজং ছাত্র সংগঠন ও চানচিয়া ৭ দিনের আল্টিমেটাম দিয়েছে।

সোমবার স্বরাষ্ট মন্ত্রণালয় অভিমুখে বিক্ষোভ ও ঘেরাও কর্মসূচি থেকে তারা এ আল্টিমেটাম দেয়। এর আগে বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি সৈকত মল্লিকের সভাপতিত্বে এবং অলিক মৃ’র সঞ্চালনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলায় এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশ হয়।

পরে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রাণালয় ঘেরাওয়ের উদ্দ্যেশে যাত্রা শুরু করলে দোয়েল চত্বর এলাকায় পুলিশ বাধা দেয়। এসময় বিক্ষোভকারীরা ব্যারিকেড ভেঙ্গে ফেললে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয়। একপর্যায়ে পুলিশি বাধার মুখে ঘটনাস্থলেই বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে সৈকত মল্লিক বলেন, “ধর্ষিত গারো নারী যেখানে ৫ জন ধর্ষকের উল্লেখ করেন সেখানে পুলিশ মাত্র ২ জনকে গ্রেফতার করে বাকি ৩ জনকে আড়াল করার চেষ্টা করছে। এই রাষ্ট্র যৌন সন্ত্রাসীর কথা শোনে কিন্তু যারা নিপীড়িত হন, ধর্ষিত হন তাদের কথা শোনে না।”

তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, “পাহাড়-সমতলে সংঘটিত সকল যৌন নিপীড়নের বিচার করুন এবং আগামী ৭ দিনের মধ্যে গারো নারী ধর্ষণের সাথে জড়িত ৫ জনকেই গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনুন।”

চানচিয়ার সমন্বয়ক আন্থনি রেমা বলেন, “বর্তমান সরকার নারীবান্ধব নয়, আদিবাসী বান্ধবও নয়; এ সরকার ধর্ষক-নিপীড়কের পক্ষের ও অগণতান্ত্রিক সরকার।”

সমাবেশে এসময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল আলম সোহেল, বাগাছাস ঢাকা মহানগর শাখার সভাপতি পাপ্পু ডিও, বাংলাদেশ হাজং ছাত্র সংগঠন ঢাকা মহানগর শাখার সহসভাপতি তমাল হাজং, আদিবাসী ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি অনন্ত ধামাইসহ আদিবাসী ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ, পিসিপি, আদিবাসী স্বেচ্ছাসেবক সংগঠনের নেতারা।