September 28, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

মিথ্যা মামলা আর প্রাণভয়ে দেশে ফিরতে পারছেন না সোহেল ডি ক্রুশ

কালীগঞ্জ প্রতিনিধি : মিথ্যা হত্যা ও অস্ত্র মামলার দায় নিয়ে পলাতক দেশান্তরী যোসেফ সোহেল ডি’ক্রুশ নামের এক যুবকের পরিবার এখনো হুমকী আর আতংকে দিন কাটাচ্ছে। গাজীপুরের কালীগঞ্জ থানার নাগরী এলাকার খ্রীস্টান ধর্মীয় বই ও প্রচারণা সামগ্রি বিক্রেতা সোহেল এখন পালিয়ে বিদেশ চলে গেলেও তার পরিবার এখন আতংকে দিন কাটাচ্ছে। স্থানীয় সন্ত্রাসী হিরন ও তার বাহিনী নিয়মিত সোহেল ডি’ক্রুশের মাসহ পরিবারের সদস্যদের উচ্ছেদের হুমকী দিয়ে আসছে। আতংকে তার পরিবারের মা আর ছোট বোন ছাড়া ছোট ভাই ও তার পরিবার এলাকা ছাড়া হয়ে আছেন। অপরদিকে মিথ্যা মামলা ও সন্ত্রাসীদের হুমকীর মুখে ইচ্ছে থাকা সত্বেও দেশে ফিরতে পারছেন না সোহেল ডি’ক্রুশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নাগরী বাজারে যীশুই পথ প্রদর্শক নামের একটি ধর্মীয় প্রচার-প্রচারণা সামগ্রির দোকানকে ঘিরে ঘটনার সূত্রপাত হয়। প্রথমে দোকানটি থেকে চাঁদা দাবি করলে দোকানের মালিক সোহেল ডি’ক্রুশ প্রতিবাদ করে। পরবর্তীতে সে বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় সন্ত্রাসী হিরণ তার দলের লোকজনের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ আয়োজন করে। বিষয়টি নিয়ে ক্ষুব্ধ হিরনের লোকজন পরবর্তীতে ওই দোকান ভাংচুর ও সোহেলসহ তার কর্মীদের ব্যাপক মারধোর করে এবং ২০ হাজার টাকাও নিয়ে আরো দুই লাখ টাকা দাবি করে। পরে সোহেল মামলা করতে গেলেও থানা মামলা নেয়নি, উল্টো তাদের বিষয়টি মিমাংসা করিয়ে নিতে বলে। কিন্তু হিরণ পরবর্তীতে তার বাহিনী নিয়ে এসে দোকানের কর্মচারী ও সোহেলকে মারধোর করে। তার পরদিন ৪ ডিসেম্বর ২০১৪ ইং তারিখে ব্যবসার কাজে ঢাকা যাওয়ার পথে পুবাইলে তার ওপর আবারো হামলা চালায় সন্ত্রাসী বাহিনী। এ সময় তার উদ্দেশ্যে ছোড়া গুলি সন্ত্রাসী বাহিনীর সেলিম নামের একজনের গায়ে লাগলে সে মারা যায়। ঘটনার আকস্মিকতার সুযোগে পালাতে সক্ষম হয় আহত সোহেল। পরবর্তীতে সে জানতে পারে তার নামে সেলিমের মারা যাওয়ার ঘটনায় মিথ্যা হত্যা মামলা হয়েছে এবং তার ধর্মীয় দোকান থেকে ওই হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত অস্ত্র উদ্ধার হয়েছে।

এদিকে হত্যা ও অস্ত্র মামলায় পুলিশ ও স্থানীয় সন্ত্রাসীদের ভয়ে পরিবারের পরামর্শে ভারতে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে ফেব্রুয়রিতে জাহাজে চেপে অবৈধভাবে ফ্রান্সে পালিয়ে যায়। যোসেফ সোহেলের মা নেলী মেরী ডি’কস্তা জানান, সোহেল চলে গেলেও সন্ত্রাসী বাহিনী বারবার বাড়িতে এসে হুমকী-ধামকি দিচ্ছে। সম্প্রতি তাদের রাস্তা সংলগ্ন একখন্ড জমি দখল করে কাব গঠন করার ঘোষণা দিয়েছে। তাছাড়া বাড়ি-ঘর বিক্রি করে না গেলে তাদের গ্রামছাড়া করার হুমকী দিচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় গ্রাম্য মাতবরদের কাছে নালিশ করেও কোন সুরাহা মেলেনি।

সোহেলের ছোট ভাই ভিনসেন্ট বি ক্রুশ জানান, স্ত্রী তৃষ্ণা বিশ্বাস ও দুই সন্তান নিয়ে এখন নিজের ভিটেমাটি ছাড়া হয়ে আছেন। তার বড় ভাইকে না পেয়ে সন্ত্রাসী হিরণ বাহিনী তার ওপরও বেশ কয়েকবার হামলা চালিয়েছিল। সৌভাগ্যক্রমে বেঁচে গিয়ে এখন এলাকার বাইরে পালিয়ে থাকেন তিনি। এলাকায় তার মা ও ছোট বোন ডলি ট্রিজা ক্রুশ সারাক্ষণ আতংকে দিন কাটাচ্ছেন।

ভিনসেন্ট আরো জানান, সম্প্রতি তার ওপর দুই দফা হামলা ছাড়াও তাদের বাড়ি ছেড়ে দিতে হুমকী দিচ্ছে সন্ত্রাসী বাহিনী। তারা বাড়িতে গিয়ে শাসিয়ে গেছে যে, সোহেল দেশে ফিরলেই তাকে খুন করা হবে। এ ভয়ে সোহেলের স্ত্রী সিনথিয়া পুজা গোমেজ আত্মগোপন করে নিজের বাপের বাড়ি গিয়ে থাকে।

প্রবাসে আত্মগোপনে থাকা সোহেলের স্ত্রী সিনথিয়া পুজা জানান, তার স্বামীকে দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করেছিলেন। তবে হত্যা ও অস্ত্র আইনে আলাদা দুটি মামলা থাকায় পুলিশি হয়রানির ভয়ে তার স্বামী দেশে ফিরতে পারেনি। তাছাড়া সন্ত্রাসী হিরণ বাহিনী হুমকী দিয়েছে যে, সোহেলকে পেলেই তারা তাকে খুন করবে। এমতাবস্থায় তাকে নিয়ে আতংকে দিন কাটছে সবার।