September 24, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

রমজানে সুস্থ থাকতে প্রয়োজনীয় খাদ্যাভাস

ডেস্ক প্রতিবেদন : রমজান সিয়াম সাধনার মাস হলেও এ মাসেই যেন খাবার মহোৎসব শুরু হয় বিশ্বজুড়ে। এ সময় ভাজাপোড়া খাবারে বেশি আগ্রহ দেখা যায়। সারাদিনের রোজার পর প্রতিদিন পিঁয়াজুসহ যে কোনো ধরনের চপ না হলে যেন ইফতারে পূর্ণতা আসে না। এগুলো খেতে ভালো লাগলে শরীরের অনেক ক্ষতি করে। তাই যতটা সম্ভব এসব খাবার এড়িয়ে চলাই ভালো। এ সময় প্রাধান্য দিন স্বাভাবিক খাবারকে।

এবার রমজানে সুস্থ থাকার খাদ্যাভাস জানিয়ে দিচ্ছি:

  1. এ সময় ভাজা ও ফ্যাটজাতীয় খাবার একবারেই খাবেন না। কারণ এ ধরনের খাবার পরিপাকতন্ত্রের স্বাভাবিক কাজকে ব্যাহত করে। ইফতার ও রাতে ঘুমানোর আগ পর্যন্ত পানি ও ফলের জুস খাওয়ার চেষ্টা করুন। এতে শরীরের পানির ঘাটতি পূরণ হবে।
  2.  রাতের খাবারে বা সেহরিতে কার্বোহাইড্রেটজাতীয় খাবার খান। যেমন- ভাত, রুটি ইত্যাদি। এগুলো আপনাকে সারাদিন কর্মক্ষম রাখবে।
  3.  আঁশজাতীয় খাবার খেতে পারেন। এটা পরিপাকতন্ত্রকে সচল রাখতে সাহায্য করবে। যেমন- ডাঁটা তরকারি, কচুরলতি ইত্যাদি।
  4.  পটাশিয়াম ও ম্যাগনেশিয়ামজাতীয় খাবার খেতে পারেন। যেমন- মাছ। এছাড়া মাংসও খেতে পারেন। তবে খাবারের পরিমাণ যেন আপনার শরীরের চাহিদা থেকে বেশি হয়ে না যায়।
  5.  কলায় কার্বোহাইড্রেট, পটাশিয়াম ও ম্যাগনেশিয়াম আছে। তাই ইফতারিতে একটি কলা রাখুন।
  6.  চা বা ক্যাফেইনজাতীয় খাবার বেশি খাওয়া ঠিক নয়। যাদের এ ধরনের খাবারের অভ্যাস রয়েছে তাদের রোজা থাকাকালীন মাথাব্যথা, দুর্বল এবং ঝিমুনি ভাব আসতে পারে। তাই রোজার আগে থেকেই ক্যাফেইনজাতীয় খাবার কমিয়ে দিতে পারলে ভালো হয়।
  7.  সেহরিতে কিছু খাবার এড়িয়ে চলা উচিত। এর মধ্যে প্রথমেই রয়েছে ডিম, তারপর যেকোনো প্রকার ডাল, খিচুড়ি, অতিরিক্ত তেলযুক্ত খাবার, পোলাও, বিরিয়ানী, তেহারি, লেবু, কোমল পানীয় এবং ফাস্টফুড।