December 6, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

প্রথম দিনেই অলিম্পিক এক্সেসরিজের দর বেড়েছে ৩৯১ শতাংশ

নিজস্ব প্রতিবদেক : লেনদেনের প্রথমদিনেই ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) অলিম্পিক এক্সেসরিজের দর বেড়েছে ৩৯১ শতাংশ। ১০ টাকা থেকে দিনশেষে দর বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৯.১০ টাকায়। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

অলিম্পিক এক্সেসরিজ ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে বাজার থেকে অর্থ সংগ্রহ করে। সে হিসাবে বৃহস্পতিবার লেনদেন শুরুর আগে এডজাস্টেড ওপেন প্রাইসও ছিল ১০ টাকা। তবে লেনদেনের শুরুতে কোম্পানিটির শেয়ারের ওপেনিং প্রাইস হাঁকা হয় ৩৫ টাকা। অর্থাৎ এডজাস্টেড প্রাইসের চেয়ে ২৫ টাকা বেশি দরে শুরু হয় কোম্পানির লেনদেন। কিন্তু দিনশেষে কোম্পানির সর্বশেষ লেনদেন দর উঠে ৪৯.১ টাকা। এ হিসাবে কোম্পানিটির শেয়ারের দর বেড়েছে ৩৯.১ টাকা। শতকরা হিসাবে দর বৃদ্ধির এ হার ৩৯১ শতাংশ। দিনের মধ্যে কোম্পানিটির শেয়ারের সর্বনিম্ন দর ছিল ৩৫ টাকা ও সর্বোচ্চ দর ছিল ৪৯.৯০ পয়সা।

 এদিকে সম্প্রতি শেয়ারবাজারে লেনদেন শুরু হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে অল্পিম্পিক এক্সেসরিজ বিনিয়োগকারীদের প্রত্যাশা পূরণে সমর্থ হয়েছে। শাশা ডেনিমস ও তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজের আইপিও বিজয়ীদের বড় ধরনের হতাশায় পুড়তে হয়েছিল কোম্পানি দুটির শেয়ারের প্রত্যাশিত দর না পাওয়ায়।

এদিকে লেনদেন শুরুর প্রথম দিনে অলিম্পিক এক্সেসরিজের শেয়ার দরে কোন ধরনের সার্কিট ব্রেকার ছিল না। আগামী রবিবার দ্বিতীয় কার্যদিবসেও কোম্পানিটির শেয়ার দরে কোন ধরনের সার্কিট ব্রেকার থাকবে না। আগে লেনদেন হওয়া নতুন কোম্পানির প্রথম ৫ দিন পর্যন্ত ব্রেকার থাকতো না। গত মে মাসে বিএসইসি ৫ দিনের পরিবর্তে তা ২ দিনে কমিয়ে আনে। নতুন তালিকাভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের অস্বাভাবিক দর বাড়ার বা কমার প্রবণতা রোধ করতে সার্কিট ব্রেকারের সময় সীমা কমিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

এদিকে অলিম্পিক এক্সেসরিজ আইপিওতে ২ কোটি শেয়ার ছেড়েছিল। প্রথম দিনে কোম্পানিটির ৮৭ লাখ ২১ হাজার ৭৩১টি শেয়ার হাতবদল হয়েছে। সে হিসাবে আইপিওতে বরাদ্দ দেওয়া শেয়ারের ৪৩.৬০ শতাংশ প্রথম দিনেই হাতবদল হয়েছে।