October 24, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

সাতকানিয়া, লোহাগাড়া ও চন্দনাইশে বন্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক :  টানা বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে সাতকানিয়া, লোহাগাড়া ও চন্দনাইশে সৃষ্ট বন্যায় পানিবন্দী হয়ে পড়েছে এসব এলাকার তিন লক্ষাধিক মানুষ। কয়েক দিনের একটানা প্রবল বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে এ বন্যার সৃষ্টি হয়েছে।

এসব এলাকার ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া শঙ্খ ও ডলু নদীর পানি দুই কূল ছাপিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া, বন্যায় অব্যাহত পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে  শঙ্খ ও ডলু নদীর ভাঙনও তীব্র আকার ধারণ করেছে।

সরেজমিন পরিদর্শন ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সাথে কথা বলে জানা যায়, বন্যা কবলিত এলাকার রাস্তা-ঘাট পানির নিচে তলিয়ে যাওয়া মানুষ ঘর থেকে বের হতে পারছে না। বসত ঘরে পানি ঢুকে পড়ায় এসব এলাকার অনেক মানুষ অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছে। ভেসে গেছে মৎস্য খামারের কয়েক কোটি টাকার মাছ। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পানি ঢুকে পড়ায় অনেক স্কুল ও মাদ্রাসায় পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি।

সাতকানিয়া উপজেলার কেওঁচিয়া, জনার কেওঁচিয়া, তেমুহনী, বাজালিয়া, মাহালিয়া, বড়দোয়ারা, কাটাখালির কূল, পশ্চিম বাজালিয়া, হিন্দু পাড়া, পুরানগড়, ধর্মপুর, কালিয়াইশ, কাঠগড়, নলুয়া, খাগরিয়া, পশ্চিম আমিলাইষ, পূর্ব আমিলাইষ, হিলমিলি, কাঞ্চনা, দক্ষিণ চরতি, মধ্যম চরতি, উত্তর ব্রাহ্মণডেঙ্গা, উত্তর তুলাতলি, দক্ষিণ ব্রাহ্মণডেঙ্গা, দ্বীপ চরতি, কাঞ্চনা, সোনাকানিয়া, এওঁচিয়া, পশ্চিম ঢেমশা, ঢেমশা, মরিচ্যা পাড়া, উত্তর ঢেমশা, বিল্লাপাড়া, ছগীর মোহাম্মদ পাড়া, বড়ুয়াপাড়া, হিন্দুপাড়া, উত্তর ছদাহা, লোহাগাড়ার চুনতি, বড়হাতিয়া, কলাউজান, পদুয়া ও চন্দনাইশের ধোপাছড়ি, দোহাজারী, বৈলতলী, বরমা, হাশিমপুর ও বরকল এলাকার প্রায় তিন লক্ষাধিক মানুষ পানি বন্দি রয়েছে।

সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা  বলেন, ‘উপজেলার বিভিন্ন এলাকার মানুষ পানিবন্দী রয়েছে। চরতী, আমিলাইষসহ কয়েকটি এলাকায় শঙ্খ নদীর ভাঙনে বেশ কিছু মানুষ বসত ঘর হারিয়েছে। এবিষয়ে আমরা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি, যাতে দুর্গত এলাকায় সাহায্যের ব্যবস্থা করা যায়।’