September 28, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

মানবপাচার প্রতিরোধে সরকারের প্রশংসা করলেন বার্নিকাট

কুটনৈতিক প্রতিবেদক : মানবপাচারের বিরুদ্ধে মার্কিন সরকারের সম্মিলিত লড়াইয়ের অঙ্গীকারের কথা পুনর্ব্যক্ত করে এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানিয়ে মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্সিয়া বার্নিকাট বলেছেন, এ বিষয়ে বাংলাদেশ এবং এ অঞ্চলের জন্য এখন একটি জটিল সময় যাচ্ছে।
মঙ্গলবার রাজধানীতে ‘মানবপাচারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জাতীয় কর্মপরিকল্পনা’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় বক্তৃতায় বার্নিকাট এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, মানবপাচার রোধ একটি কঠিন চ্যালেঞ্জ। অন্যান্য অপরাধের মতো এটিও এককভাবে কোনো দেশ, সংগঠন অথবা সরকারের মন্ত্রণালয় বন্ধ করতে পারবে না। সমাজের প্রতিটি সেক্টরকে এ লড়াইয়ে অংশ নিতে হবে।
হাজার হাজার রোহিঙ্গা ও বাংলাদেশি নাগরিকের সাগরে নৌকায় আটকে থাকার কথা উল্লেখ করে মার্কিন কূটনীতিক বলেন, যে দেশ থেকে যাচ্ছে, যে দেশের ওপর দিয়ে যাচ্ছে এবং যে দেশে যাবে -এসব দেশকে মানবপাচার রোধে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।
বার্নিকাট বলেন, এটি উৎসাহব্যঞ্জক যে, বাংলাদেশের সরকার এবং সুশীল সমাজ এ বিষয়ে সহযোগিতা করার গুরুত্ব বুঝতে পেরেছে এবং মানবপাচার রোধের প্রচেষ্টায় সম্মিলিতভাবে এগিয়ে এসেছে।
এ সময় মানবপাচার প্রতিরোধে বাংলাদেশ সরকারের প্রশংসা করে বার্নিকাট বলেন, এ সমস্যা মোকাবলোয় যুক্তরাষ্ট্র সরকারের সঙ্গে অংশীদারের ভিত্তিতে কাজ করে যাওয়ায় আমি বাংলাদশে সরকারকে ধন্যবাদ জানাই। আমরা বাংলাদশেরে প্রতি আমাদের সর্মথন অব্যাহত রাখতে বদ্ধপরিকর এবং আমরা আমাদের অংশীদারকে এ কর্মসূচির সফল বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে সহায়তা করতে চাই।
এসময় তার ব্যক্তিগত জীবনে কীভাবে এই মানবপাচারের প্রভাব ফেলেছে তা উল্লেখ করে তিনি জানান, নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ডের পূর্বদিকে আমেরিকান আদিবাসী গোত্রে আমার জন্ম। শিশু অবস্থায় আমি একটি শ্বেতাঙ্গ পরিবারে চুক্তিভিত্তিক দাস হিসেবে দিয়ে দেওয়া হয়। সেখানে অনেক বছর ধরে আমাকে ধোয়া-মোছার কাজ ও গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করতে হয়। দুঃখজনকভাবে আজ মানবপাচার ও দাসত্ব চলছে, তবে তার ধরন আগের তুলনায় অনেক ব্যাপকতা পেয়েছে।
অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. এম মোজাম্মেল হক খান, পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক, আইন সচিব আবু সালেহ শেখ এম জহিরুল হক এবং প্রবাসী কল্যাণ সচিব খন্দকার এম ইফতেখার হায়দার প্রমুখ বক্তৃতা করেন।