December 1, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

১৬২ ছিটমহলের জরিপ নিয়ে ভারত-বাংলাদেশ বৈঠক

লালমনিরহাট প্রতিনিধি : বাংলাদেশ-ভারতের অভ্যন্তরে থাকা ১৬২ ছিটমহলের যৌথ জরিপ কার্যক্রম ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে সম্পন্ন করতে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে তিনটায় বুড়িমারী স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের হলরুমে ভারতের ১৫ সদস্যের প্রতিনিধি দলের সাথে বাংলাদেশের ১৫ সদস্যের প্রতিনিধি দলের এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

এ প্রসঙ্গে জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান জানান, “বাংলাদেশের জেলা প্রশাসক-ভারতের জেলা ম্যাজিস্ট্রেট পর্যায়ের এ সম্মেলনে ১৫ সদস্যের বাংলাদেশি প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক এবিএম আজাদ।”

দুদেশের মধ্যে অনুষ্ঠিত টানা তিন ঘণ্টাব্যাপী এ বৈঠক শেষে কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক এবিএম আজাদ সাংবাদিকদের বলেন, “৭৫ কার্যকরী সদস্য ও অতিরিক্ত ১০ জন সদস্য, মোট ৮৫ জন সদস্য ছিটমহল বিনিময় যৌথ জরিপ কার্যক্রম পরিচালনা করবে।”

তিনি আরো বলেন, “ জরিপ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য সদস্যদের ৮৫ সদস্যের প্রশিক্ষণ গ্রহণ, ক্যাম্প স্থাপন, যৌথ মাঠ পরিদর্শন নিশ্চিতকরণ, বিজিবি ও বিএসএফের মাধ্যমে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকল্পে নিরাপত্তা জোরদারে সিন্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। ছিটমহলের ভূমি মালিকানা জরিপের বিষয়টিতে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হবে।”

বাংলাদেশের প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যরা হলেন, লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান, নীলফামারী জেলা প্রশাসক জাকির হোসেন, পঞ্চগড় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন, লালমনিরহাট-১৫ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল আহমদ বজলুর রহমান হায়াতী, বিজিবি রংপুর অঞ্চলের পরিচালক লে. কর্নেল সাফিউল আলম খাঁন, লালমনিরহাট পুলিশ সুপার টিএম মুজাহিদুল ইসলাম, কুড়িগ্রাম পুলিশ সুপার তবারক উল্ল্যাহ, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আক্তার হোসাইন আজাদ, ভুরুঙ্গামারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এজেএম এরশাদ আহসান হাবীব, পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূর কুতুবুল আলম, ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেজাউল করিম, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর পরিচালক জাহিদুল হক সরকার, রংপুর জোনাল সেটেলমেন্ট কর্মকর্তা আব্দুল মান্নান, ভারতের কলকাতায় নিযুক্ত বাংলাদেশি হাই কমিশনের কাউন্সিলর আনোয়ারুল ইসলাম।

ভারতের পক্ষে ১৫ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন কুচবিহার জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (ডিএম) পি উলাগানাথন। এ প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যরা হলেন- কুচবিহার পুলিশ সুপার রাজেশ কুমার ইয়াদেভ, বাংলাদেশে নিযুক্ত সহকারী হাইকমিশনার সন্দীপ মিত্র, কুচবিহার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (সার্বিক) চিরঞ্জীব ঘোষ, কুচবিহার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এলএন্ডএলআর) সঞ্জয় কুমার দাস, মেখলিগঞ্জ সাব ডিভিশনাল অফিসার রঞ্জন কুমার ঝাঁ, মাথাভাঙ্গা সাব ডিভিশনাল অফিসার রঞ্জন চক্রবর্তী, দিনহাটা সাব ডিভিশনাল অফিসার কৃষ্ণভা ঘোষ, পশ্চিমবঙ্গের (ডিসিও) উপপরিচালক অরুনাশীষ চ্যাটার্জি, সহকারী উপপরিচালক দেবাশীষ চ্যাটার্জি, কুচবিহার ডিএম (ডিসি) বিপ্লব সরকার, ছিটমহল উন্নয়ন কর্মকর্তা প্রদীপ্ত ভক্ত, জরিপকারী কর্মকর্তা (আইবিবিডি) সুদীপ্ত সরকার, ছিটমহল সেলের পর্যবেক্ষক এলটি ভুটিয়া।