June 22, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

অ্যাশেজ লড়াই শুরু আজ

ক্রীড়া ডেস্ক : কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনে আজ ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটের আইকনিক লড়াই অ্যাশেজের ৬৯তম আসর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। বাংলাদেশ সময় বিকেল ৪টায়  অ্যাশেজ সিরিজের প্রথম টেস্টে মাঠে নামবে এই দুই দেশ।

এই নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো কার্ডিফে কোনও অ্যাশেজ টেস্ট হতে যাচ্ছে। ২০০৯ সালের অ্যাশেজে সর্বশেষ এ ভ্যানুতে মুখোমুখি হয়েছিল ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া। সেই টেস্টে বল ও ব্যাট হাতে শেষ পর্যন্ত দৃঢ়তা দেখিয়ে ইংলিশদেরকে টেস্ট ড্র করতে সাহায্য করেছিলেন জেমস অ্যান্ডারসন ও মন্টি পানেসার। এর পর থেকে দুই দলেই নিজেদের ক্রিকেট নিয়ে বহু পথ পাড়ি দিয়েছে।

ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার হয়ে আগের অ্যাশেজ সিরিজে খেলা মাত্র তিনজন ক্রিকেটারই বর্তমান স্কোয়াডে রয়েছেন। ইংল্যান্ডের অধিনায়ক অ্যালেস্টার কুক, জেমস অ্যান্ডারসন ও স্টুয়ার্ট ব্রড এখনও নিজেদের দলে ধরে রেখেছেন। অসিদের হয়ে তিন ক্রিকেটার হলেন অধিনায়ক মাইকেল কার্ক, ব্রাড হ্যাডিন ও মিচেল জনসন।

২০১৫ অ্যাশেজ সিরিজ নিয়ে বেশ আলোচনা হচ্ছে চার দিকে। দুই দেশের ক্রিকেটারদের মধ্যে বাকযুদ্ধ ইতোমধ্যে একটি দারুণ টেস্ট সিরিজের হাতছানি দিচ্ছে সবার সামনে। স্বাগতিক ইংল্যান্ড ২৮ বছর পর ২০০৫ সালে ঐতিহাসিক টেস্ট সিরিজ জয়ের পর ঘরের মাটিতে আর পরাজিত হয়নি। যদিও সর্বশেষ অসিদের মাটিতে ২০১৩-১৪ সিরিজে অস্ট্রেলিয়া ৫-০ ব্যবধানে হোয়াইট ওয়াশ করেছিল ইংলিশদের।

সর্বশেষ দু’টি সিরিজে ইংলিশরা নিউজিল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সমতায় শেষ করেছিল। অন্যদিকে অসিরা ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে বেশ প্রভাব বিস্তারকারী জয় দিয়ে সিরিজ জিতেছিল। অসি অধিনায়ক মাইকেল কার্ক বলেছেন, ‘সবাই তার দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতন।’ অন্য দিকে ইংলিশ পেস বোলার অ্যাশেজে নিজের সেরাটা দেয়ার জন্য মুখিয়ে আছেন। ইংল্যান্ডের হয়ে বেন স্টোকস, জো রুট সবার দৃষ্টিতে থাকবেন। অন্যদিকে অসিদের হয়ে স্টিভেন স্মিথ, মিচেল জনসনের পারফরম্যান্স ভালো কিছুর ইঙ্গিত দিচ্ছে।

২০১৪ পর্যন্ত ৬৮টি অ্যাশেজ সিরিজ হয়েছে। এর মধ্যে অস্ট্রেলিয়া ৩২ এবং ইংল্যান্ড ৩১ বার সিরিজ জয় করেছে। বাকি পাঁচটি সিরিজ ড্র হয়েছে।