June 23, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

ফেলানী হত্যার রায়ের বিরুদ্ধে ভারতীয় সংস্থার রিট

ডেস্ক প্রতিবেদন : ফেলানী খাতুন হত্যার রায় চ্যালেঞ্জ করে ভারতের সর্বোচ্চ আদালতে রিট আবেদন করেছে দেশটির মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্ডিয়া। ফেলানী হত্যায় মানবাধিকার লঙ্ঘিত হয়েছে এবং এর বিচারপ্রক্রিয়া নিয়েও সংশয় তৈরি হয়েছে বলে রিটে উল্লেখ করা হয়।

সোমবার রিটটি ডাক এবং ইমেইলের মাধ্যমে প্রধান বিচারপতি বরাবর পাঠানো হয়।

রিটের বিষয়ে অ্যামনেস্টি ইন্ডিয়ার সম্পাদক সুশান্ত সরকার বলেন, “ভারতীয় সংবিধানের ৩২ নম্বর অনুচ্ছেদ অনুযায়ী কোনো ব্যক্তির মৌলিক অধিকার লঙ্ঘিত হলে তার মানবাধিকারও লঙ্ঘিত হয়। এই মর্মে ভারতের সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এইচ এল দাত্তুর কাছে ইন্ডিয়ান পোস্টাল সার্ভিস এবং ই-মেইলে আমরা রিট আবেদন জানিয়েছি। তবে আবেদনটি গৃহীত হবে কি হবে না সেটি আগামী কয়েক দিনের মধ্যে জানা যাবে।”

সুশান্ত বলেন, “সরাসরি আমরা বিএসএফের বিচার নিয়ে কোনো প্রশ্ন তুলিনি। তবে এই বিচারপ্রক্রিয়া নিয়ে দুই দেশের মানুষের মধ্যে যে সংশয় তৈরি হয়েছে সেটা পরিষ্কার করার জন্য সুপ্রিম কোর্টের হস্তক্ষেপ চেয়েছে অ্যামনেস্টি ইন্ডিয়া।”

গত ২ জুলাই বিএসএফের বিশেষ আদালত মামলার পুনর্বিচারে অমিয় ঘোষকে নির্দোষ বলে রায় দেওয়া হয়। ওই চূড়ান্ত রায়ে বিএসএফের মহাপরিচালক এখনো স্বাক্ষর করেননি বলে জানা গেছে।

ভারতের উচ্চ আদালতে এই রায় চ্যালেঞ্জ করে আপিল করা যাবে। এর মধ্যে ফেলানীর বাবা নুরুল ইসলাম নুরু ভারতের আরেকটি মানবাধিকার সংস্থা ‘মানবাধিকার সুরক্ষা মঞ্চ’ বা মাসুম-এর কাছে আপিল করার জন্য আবেদন করেছেন।

তবে মাসুমের পক্ষ থেকে সুপ্রিম কোর্টে এই রায়ের বিরুদ্ধে আবেদনের করা হয়েছে কি না সে বিষয়ে সংস্থাটির পক্ষ থেকে এখনো কিছু জানানো হয়নি।