June 22, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

‘অশউইৎজের হিসাবরক্ষকের’ চার বছরের কারাদণ্ড

বিদেশ ডেস্ক : ‘অশউইৎজের হিসাবরক্ষক’ নামে কুখ্যাত ৯৪ বছর বয়সী যুদ্ধাপরাধী অস্কার গ্রোয়েনিংকে চার বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন জার্মানির এক আদালত। তিন মাস ধরে চলা বিচার শেষে  বুধবার জার্মানির লুনেবুর্গ শহরের প্রাদেশিক আদালত এই দণ্ড দেন।

একাত্তর বছর আগে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় পোল্যান্ডের অশউইৎজ বন্দী শিবিরে প্রায় তিন লাখ মূলত ইহুদি যুদ্ধবন্দীকে হত্যায় সহায়তাকারী হিসেবে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন গ্রোয়েনিং।

গ্রোয়েনিংয়ের এই বিচার-প্রক্রিয়ায় যোগ দিতে ১৪ জন আইনজীবীসহ ৬৭ জন সাক্ষী এসেছিলেন কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র, ইসরায়েল ও হাঙ্গেরি থেকে। এছাড়া বিচার প্রত্যক্ষ করতে আসেন নানা আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের সাংবাদিকেরা।

প্রসঙ্গত, অশউইৎজ শিবিরে বন্দীদের নিয়ে আসার পর তাদের কাছ থেকে কেড়ে নেওয়া নগদ অর্থ, জিনিসপত্র ও ধনসম্পদের হিসাব রাখার দায়িত্ব ছিল গ্রোয়েনিংয়ের। এ জন্য তাঁর পরিচিতি পেয়েছিলেন ‘অশউইৎজের হিসাবরক্ষক’ নামে।

আদালতে গ্রোয়েনিং দাবি করেন, বন্দী শিবিরে গ্যাস চেম্বার ও যুদ্ধবন্দীদের গণহত্যার ব্যাপারটি তিনি জানতেন না। গণহত্যার সঙ্গে সরাসরি সংশ্লিষ্টতার ব্যাপারটি অস্বীকার করে গ্রোয়েনিং বলেন, তিনি সেখানে শুধু একজন কর্মচারী ছিলেন। তবে একপর্যায়ে কৃতকর্মের জন্য অনুশোচনা প্রকাশ করে ক্ষমা প্রার্থনা করেন তিনি।

রাষ্ট্রীয় কৌঁসুলি ইয়েনস লেম্যান জানান, ১৯৪৪ সালের মধ্য মে থেকে মধ্য জুলাই পর্যন্ত দুই মাসে ১৩৭টি ট্রেনে করে নিয়ে আসা যুদ্ধবন্দীদের টাকাপয়সা, গয়নাগাটির মতো মূল্যবান জিনিসপত্র সংগ্রহ করে তালিকা তৈরি করতেন গ্রোয়েনিং। এরপর বন্দীদের অধিকাংশকেই বিশাল হল-সদৃশ্য গ্যাস চেম্বারে ঢুকিয়ে হত্যা করা হতো। ওই দুই মাস সময়ে অন্তত তিন লাখ বন্দীকে হত্যার সহযোগী হিসেবে তাঁকে অভিযুক্ত করা হয়।

দুই বছর আগে জার্মানির বাডেনভুর্টেনবুর্গ রাজ্যের লুডভিগবুর্গ শহরে অবস্থিত দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধবিষয়ক কেন্দ্রীয় মহাফেজখানায় একটি দলিল খুঁজে পাওয়া যায়। এতে অশউইৎজ বন্দী শিবিরে কর্মরত এস এস বাহিনীর এখনো জীবিত ৩০ জন কর্মচারীর মধ্যে অস্কার গ্রোয়েনিং তাদের অন্যতম।