June 17, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

'সংসার টেকাতে হলে তো ভারতে যেতেই হবে'

ডেস্ক : টিনের ঘরের দাওয়ায় বসে দুই বছরের শিশুকন্যাকে খাওয়াচ্ছিলেন আসমা বেগম (ছদ্মনাম)।

আগেই খবর পেয়েছি, দাসিয়ারছড়া ছিটের প্রায় বার হাজার অধিবাসীর মধ্যে যে ২৮৪ জন মানুষ ভারতে চলে যাবার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন এই পরিবারটি রয়েছে তাদের ভেতর।

আসমার কাছে জানতে চাই, কেন তিনি ভারতে চলে যেতে চান?

জবাব এলো, ‘সংসার টেকাতে হলে তো ভারতে যেতেই হবে’।

শব্দগুলো বলার সময় তার গলাটা কেঁপে কেঁপে উঠছিল। চোখের কোনে চিকচিক করছিল অশ্রুবিন্দু।

কথাবার্তায় জানতে পারি, মূল ভূখণ্ডের রংপুরে জন্ম, বেড়ে ওঠা এই তরুণীটির।

বিবাহসূত্রে তিনি ছিটমহলের বাসিন্দা। বাবা-মা, আত্মীয় পরিজন সবাই থাকেন রংপুরে।

ছিটমহল বিনিময়ের সুযোগে কিছু সুবিধা পাবার আশায় স্বামী ভারতে চলে যেতে আগ্রহী।

তাই জরিপের সময় তিনি ‘অপশন’ দিয়েছেন সেটাই। আর স্বামীর ইচ্ছেতে আসমাকেও একই ‘অপশন’ দিতে হয়েছে।

অদূরেই স্বামীটি গৃহস্থালি কাজ করছিল।

তাই আমার সঙ্গে আর এই বিষয়ক কথাবার্তা চালাতে আগ্রহী হলেন না আসমা।

তার স্বামীর কাছে জানতে চাইলাম, আপনার স্ত্রীর কথাবার্তা তো মনে হচ্ছে না সে ভারতে যেতে আগ্রহী?

জবাব পেলাম, ‘তাকে তো বলেছি, তার অন্যরকম ইচ্ছে থাকলে অপশন দিতে পারে। আমি তো জোর করিনি তাকে’।

শুক্রবার মধ্যরাতেই ভারত ও বাংলাদেশের ১৬২টি ছিটমহল মূল ভূখণ্ডের অংশ হয়ে গেছে।

এর আগেই শেষ হওয়া জরিপে বাসিন্দাদের সুযোগ দেয়া হয়েছিল ইচ্ছেমত নাগরিকত্ব বেছে নেবার।

ভারতে থাকা বাংলাদেশের ছিটমহলগুলোর কোনও বাসিন্দাই দেশে ফিরতে চাননি।

অন্যদিকে বাংলাদেশে থাকা ছিটমহলগুলোর প্রায় হাজার খানেক বাসিন্দা ভারতে যেতে চেয়েছেন।

ভারতীয় ছিটমহল দাসিয়ারছড়া এখন বাংলাদেশের কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ি উপজেলার অংশ। সেখানে এখনো লেগে আছে উৎসবের আমেজ।
ভারতীয় ছিটমহল দাসিয়ারছড়া এখন বাংলাদেশের কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ি উপজেলার অংশ। সেখানে এখনো লেগে আছে উৎসবের আমেজ।

যানা যাচ্ছে, বাংলাদেশ থেকে যেসব মানুষ ভারতে যাবে, তাদের জন্য বাসস্থান, নগদ অর্থ ও কর্মসংস্থান দেবার পরিকল্পনা রয়েছে সেদেশের সরকারে।

আসমা বেগমের স্বামী জানাচ্ছেন, যেকোনো মুহূর্তে ভারতে পাড়ি জমানোর জন্য প্রস্তুতি রয়েছে তাদের।

দাসিয়ারছড়া এখন কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ি উপজেলার অংশ।

সেখানকার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন মাহমুদ বলছিলেন, যারা ভারতে যে আগ্রহ প্রকাশ করেছে, তাদের দেশটিতে পাঠিয়ে দেবার প্রক্রিয়া শুরু করার ব্যাপারে এখনো কোন নির্দেশনা আসেনি। তবে অচিরেই প্রক্রিয়া শুরু হবে।

আর অন্তর্বর্তীকালীন সময়ে আসমা বেগমদের মত কেউ যদি ভারত ভ্রমণ করতে চান তাদের জন্য বিশেষ ‘ভ্রমণ পাশ’ দেয়া হবে বলেও জানাচ্ছেন মি. মাহমুদ।