November 26, 2022

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

ভারতে ৮৫০টি পর্নোসাইট ব্লক, সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিবাদ

বিদেশ ডেস্ক : ভারতে শিশুদের কথা বিবেচনা করে ৮৫০টিরও বেশি সাইট ব্লক করার নির্দেশ দিয়েছে দেশটির টেলিকম মন্ত্রণালয়। গত দুতিনদিন ধরে ভারতে বিভিন্ন পর্নো সাইট দেখতে অসুবিধায় পড়ায় এর বিরুদ্ধে শিল্পী, লেখক, বুদ্ধিজীবীসহ সোশ্যাল মিডিয়াতে প্রতিবাদ জানিয়েছেন অনেকেই। বিবিসি।

তবে ওই মন্ত্রণালয় বলছে, ওই পর্নো সাইটগুলো ভারতে নিষিদ্ধ করা হচ্ছে না। প্রাপ্তবয়স্করা প্রক্সি সেটিং ব্যবহার করে এই সব সাইট অ্যাক্সেস করতে পারবেন।

গত মাসেই সুপ্রিম কোর্ট একটি মামলার রায়ে বলেছে, সরকার বিভিন্ন পর্নো সাইট– বিশেষ করে যেগুলোতে শিশু যৌনতা থাকে সেগুলো ঠেকাতে না পারায় তারা অসন্তুষ্ট। রায়ের ভিত্তিতে দেশটির টেলিকম মন্ত্রণালয় চাইল্ড পর্নোগ্রাফিসহ বহু জনপ্রিয় পর্নো সাইট ভারতে ব্লক করতে হবে নির্দেশ দেয়। এসব সাইটের তালিকায় অন্তত ৮৫৭টি সাইটের নাম আছে।

গত শুক্রবারই এই সরকারি চিঠি আইএসপিগুলোর হাতে পৌঁছে, কিন্তু এই নির্দেশ মিডিয়াতে প্রকাশ করা হয়নি। এমনকি সরকারের মন্ত্রী-আমলারাও কেউ প্রকাশ্যে এই নির্দেশ নিয়ে মুখ খোলেননি।

তবে টেলিকম মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বিবিসিকে সোমবার  ৮৫৭টি সাইটে অবাধ অ্যাক্সেস যাতে কন্ট্রোল করা হয়, সেই মর্মে আইএসপিগুলোকে ‘অ্যাডভাইস’ বা উপদেশ দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এ নিয়ে বলিউডের চিত্রনির্মাতা রামগোপাল ভার্মা সোশ্যাল মিডিয়াতে লিখেছেন, ‘ইচ্ছুক প্রাপ্তবয়স্কদের নির্দোষ আনন্দ থেকে বঞ্চিত করা আর তালেবান বা আইএস যেভাবে মানুষের স্বাধীনতা হরণ করে তার মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই।’

মুখ খুলেছেন মুম্বাইতে কংগ্রেসের নেতা মিলিন্দ দেওরা। তিনি টুইট বার্তায় বলেছেন, ‘পর্নো ভালবাসি কি না সেটা এখানে প্রশ্ন নয়। সরকার এখানে ব্যক্তিস্বাধীনতা ছিনতাই করছে এটাই গুরুত্বপূর্ণ। এরপর কি তাহলে ফোন আর টিভি নিষিদ্ধ করার পালা?’

উল্লেখ্য, অ্যাডাল্ট সাইট পর্নোহাব যে বিশ্বব্যাপী ডাটা বা তথ্য প্রকাশ করেছে তাতে পৃথিবীতে ইন্টারনেটে পর্নো ট্র্যাফিকের উৎস বা সোর্স হিসেবে ভারতের নাম চার নম্বরে। এর আগে রয়েছে- আমেরিকা, যুক্তরাজ্য ও ক্যানাডার নাম।