September 28, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

মাগুরার ঘটনায় কেউ ছাড় পাবে না: নাসিম

নিজস্ব প্রতিবেদক : মাগুরায় ক্ষমতাসীন দলের দুগ্রপের সংঘর্ষে মায়ের পেটে শিশু গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, “এ ঘটনায় কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না। ইতিপূর্বে র‌্যাব-পুলিশ এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ছয়জনকে গ্রেফতার করেছে। আরো কেউ জড়িত থাকলে তাদেরকেও গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে। কেউ রেহাই পাবে না।”

মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গুলিবিদ্ধ শিশুকে দেখতে গিয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

এসময় মন্ত্রী শিশুটির মায়ের হাতে ৪০ হাজার টাকা তুলে দেন। যারা আপ্রাণ চেষ্টা করে শিশুটিকে সুস্থ করে তুলছেন সেই চিকিৎসদের ধন্যবাদ জানান তিনি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বেলা সোয়া ২টায় ঢামেক হাসপাতালে যান। প্রথমেই তিনি শিশুটিকে দেখতে এনআইসিউইতে যান। এর পর দেখতে যান শিশুর মা গুলিবিদ্ধ নাজমা বেগমকে।

এর আগে গুলিবিদ্ধ শিশু ও মাকে দেখতে যান নারী ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি। তিনি গুলিবিদ্ধ শিশুটির মায়ের হাতে ৫০ হাজার টাকার একটি চেক তুলে দেন। এসময় তিনি বলেন, “এ ব্যাপারে আমাদের মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে যতটুকু করা দরকার সবই করব।”

উল্লেখ্য, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ২৩ জুলাই বিকেলে মাগুরা শহরের দোয়ারপাড়ায় সাবেক ছাত্রলীগকর্মী কামরুল ভূইয়া ও সাবেক যুবলীগকর্মী মহম্মদ আলী ও আজিবরের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

এসময় কামরুলের বড় ভাই বাচ্চু ভূঁইয়ার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী নাজমা বেগম (৩০) ও প্রতিবেশী মিরাজ হোসেন গুলিবিদ্ধ হন। কামরুলের চাচা আব্দুল মোমিন ভূঁইয়া গুলিতে নিহত হন।

ওই রাতেই মাগুরায় অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে নাজমার গর্ভে গুলিবিদ্ধ শিশুটি ভূমিষ্ঠ হয়। দুদিন পর তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এ ঘটনায় নিহত মোমিনের ছেলে রুবেল ভূঁইয়া ২৬ জুলাই ১৬ জনকে আসামি করে মাগুরা সদর থানায় হত্যাসহ বিস্ফোরকদ্রব্য আইনে মামলা করেন। এতে জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সেন সুমনকে করা হয়েছে হুকুমের আসামি।

পুলিশ সেন সুমনসহ ছয় জনকে গ্রেফতার করেছে। অপর পাঁচজন হলেন নজরুল ইসলাম, সুমন মল্লিক, সোবহান, সাগর ও বাপ্পি।