June 17, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

সুন্দরবনে বন্দুকযুদ্ধে ৬ বাঘ শিকারি নিহত

খুলনা প্রতিনিধি : সুন্দরবনের মান্দারবাড়িয়ায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ৬ বাঘ শিকারি নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন পুলিশের পাঁচ সদস্য। নিহতরা হলেন, আনসার সানা (৫৫), সিদ্দিক সানা (৪৫), বাপ্পি হোসেন (২০), রফিকুল ইসলাম (৩৮), মজিদ গাজী (৩৫) ও মামুন গাজী (২৫)। তারা সবাই কয়রা উপজেলার দক্ষিণবেদকাশি এলাকার বাসিন্দা। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ৩টি বাঘের চামড়া, ৫টি আগ্নেয়াস্ত্র ও ৭ রাউন্ড গুলি ও ৮টি গুলির খোসা উদ্ধার করে।  রবিবার বিকালে খালের উত্তরপাশে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

খুলনা জেলা পুলিশ সুপার হাবিবুর রহমান জানান, সুন্দরবন ও আশপাশ এলাকায় বাঘ শিকারি ও দস্যুদের প্রতিরোধে পুলিশের অভিযানকালে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এ সময়  ৬ বাঘ শিকারি নিহত হয়।

তবে স্থানীয়রা জানায়, রবিবার ভোরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৭ জনকে ধরে নিয়ে যায়। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৩টি বাঘের চামড়া জব্দ করা হয়।

খুলনা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ ত ম রোকনুজ্জামান জানান,  রবিবার সকালে খুলনার কয়রা উপজেলার সুন্দরবনের দক্ষিণ বেদকাশি ইউনিয়নের চরামুখা গ্রামের গাজীবাড়ী এলাকা থেকে কয়রা থানা পুলিশ ৭ জনকে ৩টি বাঘের চামড়াসহ গ্রেফতার করে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা নিজেদের বনদস্যু ইলিয়াস-জাহাঙ্গীর বাহিনীর সদস্য বলে জানায়। এছাড়া তাদের অস্ত্র ভাণ্ডার সুন্দরবনের গহীনে রয়েছে বলেও জানায়। এরপর দুপুরে পুলিশ তাদের নিয়ে সুন্দরবনের মান্দারবাড়িয়া খালের উত্তর পাশে পৌঁছলে আস্তানায় লুকিয়ে থাকা দস্যুদের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ করে গুলি ছোড়ে। এ সময় পুলিশও পাল্টা জবাবে গুলি ছোড়ে।

কয়রা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হরেন্দ্রনাথ সরকার জানান, দুপক্ষের মধ্যে ঘন্টাব্যাপী গুলিবিনিময় চলে। এ সময় পুলিশ হেফাজত থেকে ৬ জন পালিয়ে যায়। এক পর্যায়ে দস্যুরা পিছু হটে গেলে গুলির শব্দ থেমে যায়। এরপর পুলিশ সতর্কতার সঙ্গে ওই এলাকায় তল্লাশি চালিয়ে ৬ জনের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করে।