October 23, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

দুদক থেকে পুলিশে যাচ্ছে জালিয়াত মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রতারণা ও জালিয়াতির হাজার হাজার মামলার বোঝা মাথা থেকে নামাতে এবার আইন সংশোধনে হাত দিচ্ছে দুর্নীতি দমন কমিশন- দুদক।

আইন সংশোধন হলে প্রতারণা ও জালিয়াতির মামলার তদন্তের দায়িত্ব ফিরে পাবে পলিশ। তবে সরকারি সম্পত্তি সংক্রান্ত এবং সরকারি ও ব্যাংক কর্মকতাদের দায়িত্বের সঙ্গে সম্পর্কিত মামলা দুদকের অধীনেই থাকবে।

সোমবার দুনীতি দমন কমিশন (সংশোধন) আইন, ২০১৫ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ মোশাররাফ হোসাইন ভূঁইঞা সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞা প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেন, “২০০৪ সালে আইনটি প্রথম সংশোধন করা হয়। পরে ২০১০ সালে আইনটি আবারো সংশোধন করা হয়। তবে সেটি পাস হয় ২০১৩ সালে। ২০১৩ সালে দুদক আইন সংশোধন করে জালিয়াতি ও প্রতারণার বিষয়টি যুক্ত করা হয়েছে। আইনটি হওয়ার পর বাস্তব ক্ষেত্রে কিছু অসুবিধা পরিলক্ষিত হয়। প্রতারণার জন্য দুদকে হাজার হাজার মামলা হয়। দুদক আইনে যুক্ত হওয়ায় পুলিশ আর প্রতারণা ও জালিয়াতির মামলা নেয় না। এতে প্রতারণা ও জালিয়াতির মামলা অনেক বেড়ে যায়, মামলা নিষ্পত্তির হারও হ্রাস পায়। এ কারণে সরকার চিন্তা করে আইন মন্ত্রণালয় ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মতামতের ভিত্তিতে আইনটি সংশোধনের উদ্যোগ নেয়।”

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, মানি লন্ডারিং আইন নিয়ে আজ মন্ত্রিসভায় আলোচনার কথা থাকলেও অর্থমন্ত্রীর অনুপস্থিতির কারণে তা হয়নি। দুনীতি দমন কমিশন (সংশোধন) আইন ২০১৫ নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

এছাড়া মন্ত্রিসভা সুবিধা বঞ্চিত নাগরিকদের পুষ্টি নিশ্চিত করার বিধান রেখে জাতীয় পুষ্টিনীতি, ২০১৫ এর খসড়ার অনুমোদন দিয়েছে।

সচিব বলেন, “১৯৯৭ সালে জাতীয় খাদ্য ও পুষ্টি নীতিমালা করা হয়। পরর্বতীতে ২০০৭ সালে সংশোধন করা হয়।”

বৈঠকে কানাডার সঙ্গে বিমান চলাচলের বিষয়ে একটি চুক্তির খসড়া অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। সচিব জানান, এ চুক্তির দু দেশের মধ্যে বিমান যোগাযোগ আরও বৃদ্ধি পাবে। দুই দেশই ৩টি করে ফ্লাইট বেশি হবে।