September 18, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

আইএইচটি ম্যাটস ভর্তি পরীক্ষায় মোবাইল ক্যালকুলেটর নিষিদ্ধ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : আসন্ন সরকারি আইএইচটি ম্যাটস ভর্তি পরীক্ষার কেন্দ্রে ঘড়ি, মোবাইল, ক্যালকুলেটর ও হেয়ারিং মেশিন নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। কোন পরীক্ষার্থীর কাছে নিষিদ্ধ এ সব যন্ত্র পাওয়া গেলে পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে বহিস্কার করা হবে বলেও জানানো হয়েছে।

এবার রাজধানীসহ সারাদেশের ১৬টি কেন্দ্রে সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা গ্রহণ ও কেন্দ্রগুলোতে নকলের ঝুঁকি এড়াতে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে এ উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে বলে স্বাস্থ্য অধিদফতর সূত্রে এ সব তথ্য জানা গেছে।

আগামী ১৪ আগস্ট শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত ১০০ নম্বরের অভিন্ন প্রশ্নপত্রে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এবারের ভর্তি পরীক্ষায় মোট ১৬ হাজার ৬শ’ ৯৩ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবে। প্রতিটি আসনের বিপরীতে ৬ জনের কম প্রতিদ্বন্ধিতা করছে।

জানা গেছে, গত বছরের  তুলনায় এবার আবেদনকারীর সংখ্যা কমে গেছে। গত বছর মোট আবেদনকারির সংখ্যা ছিল ১৭ হাজার ৪শ’ ৪৮ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের একাধিক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা বলেন, সরকারি ১৬ আইএইচটি ও ম্যাটস ভর্তি পরীক্ষার সর্বাত্মক প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। তারা জানান, স্বাস্থ্য অধিদফতরের সাবেক ও বর্তমান দক্ষ ও অভিজ্ঞ ছয় কর্মকর্তা সমন্বয়ে গঠিত কমিটি ইতিমধ্যেই প্রশ্নপত্র প্রণয়নের কাজ শেষ করেছেন।

পরীক্ষার দিন কেন্দ্র পরিদর্শনের জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের কর্মকর্তাদের সমন্বয় ১৬টি পরিদর্শন টিম গঠিত হয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একজন যুগ্মসচিবসহ একাধিক কর্মকর্তা রাজধানীর দুটি পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করবেন। এছাড়া পরীক্ষার দিন কেন্দ্রগুলোতে আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরাও উপস্থিত থাকবেন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (চিকিৎসা শিক্ষা ও জনশক্তি উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. এ বি  এম আবদুল হান্নান জানান, আসন্ন আইএইচটি ম্যাটসের ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে গ্রহণের জন্য ইতিমধ্যেই সর্বাত্মক প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

বর্তমানে দেশে সরকারিভাবে ৮টি আইএইচটি ও ৮টি ম্যাটস পরিচালিত হচ্ছে। আইএইচটি আসন সংখ্যা ২ হাজার ৪শ’  ১৯ ও ম্যাটসে ৭শ’ ১৬টি।

স্বাস্থ্য অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছর আবেদনকারী মোট ১৬ হাজার ৬শ’ ৯৩ জন আবেদনকারীর মধ্যে ঢাকায় ১৩৪৬, রাজশাহীতে ১৬৯৯, বগুড়ায় ১৩৪৫, চট্টগ্রামে ৪১১, বরিশাল ১০১৯, রংপুর ১৩০৯, ঝিনাইদহ ৫০৯, সিলেট ৫৬৪, টাঙ্গাইল ১৮৮৭, কুমিল্লা ৮০৯, ফরিদপুর ৪১০, বাগেরহাট ১১৮৭, কুষ্টিয়া ১২৬৫, নোয়াখালী ১৪৭৫ ও সিরাজগঞ্জ থেকে ১৪৬৮ জন অংশগ্রহণ করবে।

স্বাস্থ্য অধিদফতর সূত্রে আরো জানা গেছে, সরকারিভাবে ঢাকা, বগুড়া, রাজশাহী, চট্টগ্রাাম বরিশাল, রংপুর, ঝিনাহদহ ও সিলেটে ৮টি আইএইচটি পরিচালিত হচ্ছে। এসব প্রতিষ্ঠানে তিন বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা কোর্সে ল্যাবরেটরি, রেডিওলজি, ফিজিওথেরাপি, স্যানিটারি ইনস্পেকশন, ডেন্টিষ্ট্রি, ফার্মেসি ও রেডিওথেরাপি বিষয় রয়েছে। প্রতিটি বিষয়ে প্রতি বছর ৩২৭ জন করে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়।

অপরদিকে কুমিল্লা, নোয়াখালী, ফরিদপুর, টাঙ্গাইল, বাগেরহাট, সিরাজগঞ্জ, ঝিনাইদহ ও কুষ্টিয়াসহ ৭১৬ আসনের মধ্যে কুমিল্লা, ফরিদপুর ও ঝিনাইদহে প্রতি বছর ৫২ জন করে, নোয়াখালী, টাঙ্গাইল, কুষ্টিয়া ও সিরাজগঞ্জে ১০২ জন করে ও শুধুমাত্র বাগেরহাটে ১৫২ জন শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়।