September 17, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে অ্যাপ তৈরি করল এমসিসি লিমিটেড

ডেস্ক প্রতিবেদন : জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ব্যক্তিজীবন এবং দিকনির্দেশনামূলক রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড নিয়ে তৈরি করা হয়েছে ‘বঙ্গবন্ধু’ মোবাইল অ্যাপ। স্মার্টফোনের এই যুগে দেশ-বিদেশের তরুণ প্রজন্মের কাছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন ও দর্শন খুব সহজে পৌঁছাতেই এই মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন। গুগল প্লে স্টোরের মাধ্যমে অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ব্যবহারকারী এবং অন্য প্ল্যাটফর্মের ব্যবহারকারীরা ব্যবহার করতে পারেন এই অসাধারণ অ্যাপটি।

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে অ্যাপ্লিকেশন তৈরির এই উদ্যোগ ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের। মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এমসিসি লিমিটেড অ্যাপটি তৈরি করেছে।

অ্যাপ্লিকেশনে প্রবেশ করলে মূল মেন্যুতে বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনী, ভাষণ, সাক্ষাৎকার, চিঠি, ফটোগ্যালারি এবং বঙ্গবন্ধু জাদুঘর এই ছয়টি মেন্যু পাওয়া যাবে। আত্মজীবনীতে প্রবেশ করলে সংক্ষিপ্ত জীবনী এবং অসমাপ্ত আত্মজীবনী নামে দুটি সাব মেন্যু পাওয়া যাবে।

সংক্ষিপ্ত জীবনীতে ১৯২০ থেকে শুরু করে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত বিভিন্ন ঘটনাবহুল সময়ে বঙ্গবন্ধুর কর্মকাণ্ড জানা যাবে। গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জন্ম নেয়া একজন সাধারণ ছেলে কীভাবে একটি রাষ্ট্রের, একটি জাতির জনক হয়ে ওঠেন তার ধারাবাহিক বর্ণনা আছে এখানে। এদিকে অসমাপ্ত আত্মজীবনীতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ বইটির পিডিএফ সংস্করণ পাওয়া যাবে। ভাষণ মেন্যুতে প্রবেশ করলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের গুরুত্বপূর্ণ সব ভাষণ পাওয়া যাবে। এখান থেকে মোবাইলেই ভাষণের ভিডিও দেখা যাবে।

৭ মার্চের ভাষণ, ১০ জানুয়ারি ১৯৭২ সালে ভারতে ভাষণ, স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের ভাষণ, জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে দেয়া বাংলায় ভাষণ, জুলিও কুরি পদকপ্রাপ্তির সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ভাষণ, ১৯৭৫ সালের ২৬ জানুয়ারি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে দেয়া ভাষণ, ’৭০-এর নির্বাচনের আগে রেডিও পাকিস্তানে দেয়া ভাষণ এই অ্যাপে পাওয়া যাবে। ফটোগ্যালারিতে প্রবেশ করলে বঙ্গবন্ধুর কর্মময় এবং ব্যক্তিজীবনের ১১৩ দুর্লভ ছবি পাওয়া যাবে।

এছাড়া সাক্ষাৎকার মেন্যুতে প্রবেশ করলে বিভিন্ন দেশি-বিদেশি সাংবাদিকদের নেয়া বঙ্গবন্ধুর ৬ দুর্লভ সাক্ষাৎকার পাওয়া যাবে। এসব সাক্ষাৎকারে বঙ্গবন্ধুর দর্শন, রাষ্ট্র পরিচালনার নীতি, দেশপ্রেম ইত্যাদি বিষয় উঠে এসেছে। চিঠিতে প্রবেশ করলে বঙ্গবন্ধুর হাতের লেখা অনেক চিঠি পাওয়া যাবে। চিঠিগুলো বঙ্গবন্ধু জেলে বন্দি অবস্থায় পিতা, রাজনৈতিক সহকর্মী, স্ত্রী, সন্তানদের লিখেছিলেন। বঙ্গবন্ধু জাদুঘরে প্রবেশ করলে বঙ্গবন্ধু জাদুঘর এবং টুঙ্গিপাড়া জাদুঘরের ঠিকানা ও গুগল ম্যাপে অবস্থান পাওয়া যাবে।