September 28, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

শ্রীলংকায় সাধারণ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু

বিদেশ ডেস্ক : শ্রীলংকায় সোমবার সকাল থেকে সাধারণ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। ভোটকেন্দ্রগুলোতে স্থানীয় সময় সকাল ৭টা থেকে ভোটাররা ভোট দেয়া শুরু করে। টানা ৯ ঘন্টা এ কার্যক্রম চলবে। নির্বাচনের ফল কাল মঙ্গলবার পাওয়া যেতে পারে।

নির্বাচন উপলক্ষ্যে সমগ্র দেশে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে নিরাপত্তা বাহিনীর প্রায় ৭৪ হাজার সদস্যকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এদের মধ্যে পুলিশের পাশাপাশি আধাসামরিক বাহিনীর সদস্যরাও রয়েছে। খবর এএফপি, বিবিসি।

উল্লেখ্য, মাসব্যাপী চলা নির্বাচনী প্রচারণায় বেশ কয়েকজন হতাহতের ঘটনার পরও বেসরকারি নির্বাচনী পর্যবেক্ষকরা বলছেন, গত দুই দশকে নির্বাচনকালীন সময়ের তুলনায় এবারের পরিস্থিতি বেশ ভালো। তবে মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ) নির্বাচনকে ঘিরে শ্রীলংকা সরকারকে আরো সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছে।

এ নির্বাচনের মাধ্যমে শ্রীলংকার ২২৫ সদস্যের পার্লামেন্টের সদস্যদের নির্বাচন করা হবে। প্রায় দেড় কোটি ভোটার এতে নিজেদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। দ্বীপদেশটিতে মোট ১২ হাজার ৩০০টি ভোটকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। সোমবার বেলা বাড়ার সাথে সাথে ভোটকেন্দ্রগুলোতে ভোটারদের ভিড় বাড়তে দেখা গেছে।

দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট মাহিন্দা রাজাপক্ষে আজকের নির্বাচনে জয়ের মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আবার শাসনক্ষমতায় যাওয়ার স্বপ্ন দেখছেন। কয়েকমাস আগে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে পরাজয়ের পর আবার দেশটির রাজনীতিতে ফিরে এসেছেন তিনি।

রাজাপাকসের মুখপাত্র রোহান ভালিভিটা বলেছেন, ‘চলমান নির্বাচনে মাহিন্দা রাজাপাকসে প্রধানমন্ত্রী পদে ফিরে আসবেন কিনা, সেটিই নির্ধারিত হবে। তিনি জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী।’

দীর্ঘ ৩৭ বছরের তামিল বিচ্ছিন্নতাবাদী লড়াই অবসানে সাফল্যের জন্য সংখ্যাগরিষ্ঠ সিংহলি জনগোষ্ঠীর মধ্যে রাজাপাকসের এখনো জনপ্রিয়তা রয়েছে। সেদিক থেকে তার জয়ী হওয়ার সম্ভাবনাও নাকচ করা যাচ্ছে না।

তবে বর্তমান প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, তাদের ইউনাইটেড পিপলস ফ্রিডম অ্যালায়েন্স (ইউপিএফএ) নির্বাচনে বিজয়ী হলেও, রাজাপাকসেকে প্রধানমন্ত্রীর পদ না দিতে সব রকম চেষ্টা করে যাবেন তিনি।

এদিকে নির্বাচন পূর্ববর্তী সমীক্ষাতে কোনো রাজনৈতিক দলেরই নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভের সম্ভাবনা দেখা যায়নি।