June 18, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

প্রতিকূলতার মধ্যেও বিচারকরা ন্যায়বিচারের জন্য কাজ করছেন

সিরাজগঞ্জ প্রতিবেদক :  প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেছেন, সারাদেশে প্রায় ৩০ লাখ মামলা রয়েছে। অবকাঠামো ও জনবলের সংকটের কারণে বিচার কার্যক্রম ত্বরান্বিত করতে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে। এ সকল সমস্যা থাকলেও নানা প্রতিকূলতার মধ্যেও বিচারকরা ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, আমরা ন্যায় ও সুষ্ঠু বিচার নিশ্চিত করতে অঙ্গিকারাবদ্ধ। ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করতে পুলিশ এবং চিকিৎসকসহ সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতা ছাড়া সম্ভব নয়। তাই মামলার সুরতহাল ও পোস্টমর্টেম রিপোর্টের মধ্যে যাতে অসামঞ্জস্য ও গরমিল না হয় সেদিকে সতর্ক থাকার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান জানান।

সোমবার সন্ধ্যায় সিরাজগঞ্জ সার্কিট হাউজে জুডিশিয়াল কনফারেন্সে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় তিনি আরও বলেন, মামলা নিষ্পত্তি ও কার্যক্রমের ওপর বিচার করে প্রত্যেক বিচারককে ল্যাপটপ এবং ডেক্সটপ দেয়া হবে। তিনি চলমান এবং বিচারাধীন মামলার কমপক্ষে ৫০ ভাগ মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি করারও নির্দেশ দেন। সাক্ষীর অভাবে যাতে করে কোনো মামলার বাদী সুবিচার থেকে বঞ্চিত না হয়, এই জন্য পাবলিক সাক্ষীদের সরকারের পক্ষ থেকে টিএ এবং ডিএ দেয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। যাতে করে সাক্ষীরা সাক্ষী দিতে উৎসাহিত হয়। আদালত প্রাঙ্গণে নারীদের বিশ্রামাগার নির্মাণ করার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। আধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর বিচার ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠায় প্রথমে বিভাগীয় পর্যায়ে এবং পর্যায়ক্রমে জেলা পর্যায়ে আদালত কক্ষে সাক্ষী এবং আইনজীবীদের জেরা রেকর্ড করার ব্যবস্থা ও অতিদ্রুত সিরাজগঞ্জ জুডিশিয়াল ভবন নির্মান করা হবে বলেও ঘোষণা দেন।

সিরাজগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ মো. জাফরোল হাসানের সভাপতিত্বে এসময় আরো বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মো. বিল্লাল হোসেন, পুলিশ সুপার মিরাজ উদ্দিন আহম্মেদ, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি নূরুল আমিন প্রমুখ।