September 29, 2022

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

লতিফের এমপি পদ থাকার বিষয়ে রিট খারিজ

আদালত প্রতিবেদকঃ মন্ত্রিসভা ও ক্ষমতাসীন দল থেকে অপসারিত আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর সংসদ সদস্য (এমপি) পদ থাকার বৈধতা নিয়ে রিটটি বৃহস্পতিবার খারিজ করে দিয়েছেন আদালত। বিচারপতি মো. এমদাদুল হক ও মুহম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ বুধবার নির্বাচন কমিশনের রিটের শুনানি শেষে আদেশের জন্য আজ বৃহস্পতিবার দিন ধার্য করেছিলেন। আদালতে লতিফ সিদ্দিকীর পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী কামরুল হক সিদ্দিকী। তার সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার জ্যোর্তিময় বড়ুয়া।

অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্তি এ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা ও ডেপুটি এ্যাটর্নি জেনারেল খোরশেদুল আলম। এর আগে, ১৬ আগস্ট সংসদ সদস্য পদ নিয়ে নির্বাচন কমিশনের শুনানির এখতিয়ার চ্যালেঞ্জ করে রিট করেন লতিফ সিদ্দিকী। রিটে নির্বাচন কমিশনের দেওয়া চিঠির কার্যকারিতা স্থগিতের আরজি জানানো হয়। এ ছাড়া ওই চিঠি কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না, তা জানতেও রুল জারি করা হয়। নির্বাচন কমিশন, আইন সচিব, নির্বাচন কমিশনের উপ-সচিব (আইন) ও জাতীয় সংসদের স্পিকারকে রিটে বিবাদী করা হয়।

২০১৪ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে টাঙ্গাইল সমিতির সঙ্গে মতবিনিময় সভায় পবিত্র হজ, তাবলিগ জামায়াতসহ অন্যান্য বিষয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেন লতিফ সিদ্দিকী। এরপর প্রথমে মন্ত্রিসভা থেকে এবং পরে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও প্রাথমিক সদস্য পদ থেকে বহিষ্কার করা হয় তাকে। লতিফ সিদ্দিকীকে বহিষ্কারের আট মাস পর বিষয়টি জানিয়ে আওয়ামী লীগের পাঠানো চিঠি গত ৫ জুলাই স্পিকার শিরীন শারমিনের হাতে পৌঁছায়। স্পিকার লতিফের সংসদ সদস্য পদ থাকবে কি-না, তা মীমাংসার জন্য আইন অনুযায়ী প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে চিঠি দেন। এরপর নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে লতিফ সিদ্দিকীকে ২৩ আগস্ট শুনানিতে ডাকা হয়।