July 1, 2022

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

হজের প্রাক-নিবন্ধন শুরু ২০ মার্চ : ধর্মমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : হজের প্রাক-নিবন্ধন কার্যক্রম ২০ মার্চ শুরু হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ধর্ম বিষয়কমন্ত্রী মতিউর রহমান।

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে শনিবার নবম হজ ও ওমরাহ মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বক্তব্যে ধর্মমন্ত্রী এ তথ্য জানান। হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) তিন দিনব্যাপী এ মেলার আয়োজন করেছে।

সৌদি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সমন্বয় ও হজ ব্যবস্থাপনাকে আরও সহজ ও স্বচ্ছ করতে প্রথমবারের মতো প্রাক-নিবন্ধন পদ্ধতি চালু করা হচ্ছে জানিয়ে ধর্মমন্ত্রী বলেন, ‘সৌদি কর্তৃপক্ষ হজ ব্যবস্থাপনায় ই-হজ সিস্টেম চালু করেছে। আমরাও এর সঙ্গে সমন্বয় করে আমাদের হজ ব্যবস্থাপনাকে ডিজিটাল হজ ব্যবস্থাপনায় রূপান্তরিত করেছি।’

তিনি বলেন, ‘প্রাক-নিবন্ধনের জন্য আইটি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় সফটওয়ার প্রস্তুত, স্থাপন এবং তা পরীক্ষামূলকভাবে চালু করেছি। একই সঙ্গে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়, হজ অফিস, ডিসি অফিস, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, হাব, ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারসহ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানসমূহের প্রতিনিধিদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।’

অনুমোদিত হজ এজেন্সি এবং ব্যাংকের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে বলেও জানান মন্ত্রী।

১০ সেপ্টেম্বর (৯ জিলহজ) পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত (চাঁদ দেখা সাপেক্ষে) হবে। সৌদি আরবের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী এবার বাংলাদেশে থেকে এক লাখ এক হাজার ৭৫৮ জন হজ পালন করতে পারবেন। এরমধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১০ হাজার, বাকি ৯১ হাজার ৭৫৮ জন বেসরকারিভাবে এজেন্সির মাধ্যমে হজ পালন করতে পারবেন।

মতিউর রহমান বলেন, ‘এর বাইরে আরও পাঁচ হাজার অতিরিক্ত হজযাত্রীকে এ বছর হজে যাওয়ার সুযোগ দিতে আমি সৌদি কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানাই। এ জন্য তারা নতুন চাহিদাপত্র চেয়েছেন। যা ইতোমধ্যে আমরা পাঠিয়েছি। অনুমতি পেলে এ পাঁচ হাজার হজযাত্রী সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যেতে পারবেন।’

‘এ বছরের হজচুক্তি অনুযায়ী অনুমোদিত প্রত্যেক হজ এজেন্সিকে সর্বনিম্ন ১৫০ জন হজযাত্রী পাঠাতে হবে। যা গত বছর ছিল ৫০ জন। তবে এ নিয়মটি পৃথিবীর সকল দেশের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য। এ ছাড়া পৃথিবীর অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশের হজযাত্রীদের ইসলামিক ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক বা আইডিবির মাধ্যমে টাকা জমা দিয়ে কুরবানী দিতে সৌদি কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা রয়েছে’ বলেন মন্ত্রী।

কোটা পূরণ হওয়া পর্যন্ত প্রাক-নিবন্ধন কার্যক্রম চলবে বলেও জানা গেছে।

ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে, সরকারি হজযাত্রীদের ক্ষেত্রে ৩০ হাজার টাকা ও বেসরকারি হজযাত্রীদের ক্ষেত্রে ৩০ হাজার ৭৫২ টাকা জমা দিয়ে প্রাক-নিবন্ধন সম্পন্ন করতে হবে। এ ক্ষেত্রে ব্যাংক একটি প্রাক-নিবন্ধন সনদ দেবে। মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমেও প্রাক-নিবন্ধনের বিষয়টি নিশ্চিত করা হবে।

এরপর ৩০ জুনের মধ্যে হজ প্যাকেজের পুরো টাকা পরিশোধ করে নিবন্ধন করতে হবে। এ সময় অগ্রিম নিবন্ধনের ৩০ হাজার টাকা সমন্বয় করা হবে। পুরো টাকা পরিশোধের পর হজযাত্রীরা একটি পিলগ্রিম আইডি পাবেন। এ আইডি পেলেই হজে যাওয়া নিশ্চিত হয়ে যাবে।

মন্ত্রিসভা ১১ জানুয়ারি হজ প্যাকেজ অনুমোদন দেয়। ওই বৈঠকে ‘হজ ও ওমরাহ নীতিমালা, ২০১৬’ অনুমোদন দেওয়া হয়। প্যাকেজ-১ এ হজযাত্রীদের জন্য খরচ নির্ধারণ করা হয়েছে তিন লাখ ৬০ হাজার ২৮ টাকা। প্যাকেজ-২ এর খরচ নির্ধারণ করা হয়েছে তিন লাখ ৪ হাজার ৯০৩ টাকা। সরকারি ও বেসরকারি সবার জন্যই এ প্যাকেজ দুটি প্রযোজ্য।

হজযাত্রীদের আল্লাহর মেহমান উল্লেখ করে ধর্মমন্ত্রী বলেন, ‘হজযাত্রীদের ব্যবস্থাপনা করতে গিয়ে আমরা যেন বাংলাদেশ ও সৌদি সরকারের নিয়মনীতি অনুসরণ করে চলি। তাদের যাতায়াত ও থাকা-খাওয়ার ক্ষেত্রে যেন কোনো অসুবিধা না হয় সেদিকে সকলকে লক্ষ্য রাখতে হবে। হজ ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে কোনো প্রকার অনিয়ম দেখা গেলে দায়ী ব্যক্তি, এজেন্সি, কর্মকর্তা, কর্মচারী যিনিই হোন না কেন তাকে শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে।’

হজ ও ওমরাহ মেলা হজযাত্রীদের নানা তথ্য ও সেবা পাওয়ার সুযোগ করে দেবে আশাবাদ ব্যক্ত করে মন্ত্রী বলেন, ‘হজযাত্রীরা যাতে মধ্যস্বত্বভোগী ও দালালদের প্রতারণার স্বীকার না হন সে বিষয়ে এ মেলা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।’

অনুষ্ঠানে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. আব্দুল জলিল, বাংলাদেশে নিযুক্ত সৌদি আরবের রাষ্ট্রদূত আবদুল্লাহ এইচএম আল মুতাইরি, হাব সভাপতি ইব্রাহিম বাহারসহ অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।