June 30, 2022

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

নিজামীর রিভিউর শুনানি চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদন

অাদালত প্রতিবেদক : মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে আপিলের রায়েও মৃত্যুদণ্ড বহাল মতিউর রহমান নিজামীর রায়ের রিভিউ পুনর্বিবেচনার দ্রুত শুনানির জন্য চেম্বার জজ আদালতে আবেদন করেছেন রাষ্ট্রপক্ষ।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. ইকরামুল হক টুটল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বুধবার সুপ্রিম কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এই আবেদন করা হয়। আপিল বিভাগের চেম্বার জজ আদালতে আজই শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে বলে জানান মো. ইকরামুল হক টুটুল।

বুধবার দুপুরে অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা সাংবাদিকদের বলেন, নিজামীর আপিলের রায় নিয়ে করা রিভিউ পুনর্বিবেচনার আবেদন যাতে দ্রুত শুনানি হয় তার ব্যবস্থা করবো। এবং যাতে তার মৃত্যুদণ্ড বহাল থাকে তারও আর্জি জানানো হবে।

এর আগে ২৯ মার্চ মঙ্গলবার সুপ্রিমকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় নিজামীর রিভিউ আবেদন দাখিল করেন তার আইনজীবীরা।

মুরাদ রেজা বলেন, যে তিনটি চার্জে (অভিযোগে) আপিল বিভাগ মৃত্যুদণ্ড (নিজামীর) বহাল রেখেছেন তার বিরুদ্ধে রিভিউ করেছেন আসামিপক্ষ। রায় যেটা ছিলো আমরা মনে করি সে রায় বহাল থাকবে। রিভিউটা শুধু হবে আইনগতভাবে। রিভিউতে আপিলের রায়ে কোনো ভুল ভ্রান্তি আছে কি না সেটা দেখা হবে। আমরা আশা করি, এই তিনটি অভিযোগের ডেথ সেন্টেন্স (মৃত্যুদণ্ড) বহাল থাকবে।

তিনি আরো বলেন, আপিলে সমস্ত সাক্ষ্য-সাবৎ এবং এভিডেন্স সার্কুমেস্টেনসেস (সংশ্লিষ্ট ঘটনার তথ্য-প্রমাণ) সমস্ত কিছুই কনসিডার (বিবেচনা) করেই শাস্তিটা বহাল রেখা হয়েছে। এবার রিভিউতে এসে নতুন করে কিছু বলার নেই।

তবে তিনি বলেন, দেখতে হবে, রায় যেটা হয়েছে এতে কোনো ভুল ভ্রান্তি আছে কি না। তার জন্য তাদের রিভিউ পিটিশন গ্রহণ করা যাবে কি না। আমরা অবশ্যই দ্রুত শুনানির পদক্ষেপ নেব, অচিরেই নেব বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এর আগে ‘আলবদর হত্যাকাণ্ডের সঙ্গের নিজামীর সরাসরি সম্পৃক্ততা ছিল না। আপিল বিভাগ সাক্ষ্য পর্যালোচনার ক্ষেত্রে অনেক ক্ষেত্রে তারা সঠিকভাবে মূল্যায়ন করেন নাই। তাই আমরা বিশ্বাস করি রিভিউতে তারা বিষয়টি পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে বিষয়টি দেখবেন। আমরা আশাবাদী নিজামী রিভিউতে খালাস পাবেন।’ সোমবার আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় নিজামীর রিভিউ পিটিশন দায়েরের পর সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন তার আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন।

তিনি বলেন, ‘নিজামী সাহেব একজন আলেম ব্যক্তিত্ব। এবং তার বিরুদ্ধে ৭১ থেকে যতোগুলো বই লেখা হয়েছে মুক্তিযুদ্ধের ওপরে আলবদর বাহিনীর ওপরে সেখানে কোথাও তার নাম নেই। বরং সাক্ষীতে আছে আলবদর বাহিনীর সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন এমন কোনো সরাসরি প্রমাণ নেই। সেহেতু আমরা আশাবাদী রিভিউতে তিনি খালাস পাবেন। এটাই আমাদের বিশ্বাস, এটাই আমাদের আশা।’

আপিলে নিজামীর আইনজীবীরা ৪৬টি গ্রাউন্ড দিয়েছেন। আবেদনের পৃষ্ঠা সংখ্যা ৭০। দীর্ঘ এই রিভিউ আবেদনে যে যুক্তি তুলে ধরা হয়েছে তা পর্যালোচনা করে রিভিউতে ন্যায়বিচার পাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী খন্দকার মাহবুব।

তিনি বলেন, ‘নিজামীকে ট্রাইব্যুনাল চারটি অভিযোগে ফাঁসি দিয়েছিল এর মধ্যে আপিল বিভাগ রায়ে তিনটি বহাল রেখেছেন, আর একটিতে খালাস দিয়েছেন। সেই রায়ের বিপক্ষে পুনর্বিবেচনার জন্য আমরা রিভিউ পিটিশন ফাইল করেছি। আমরা রিভিউতে দেখিয়েছি। আপিল বিভাগ সাক্ষ্য পর্যালোচনায় অনেক ক্ষেত্রে সঠিকভাবে মূল্যায়ন করেন নাই। আমরা বিশ্বাস করি রিভিউ হলে তারা পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে বিষয়টি দেখবেন।’