September 30, 2022

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

ডান্স বারে ‘বদনাম’ হতে আসেন মুন্নি,

ডেস্ক প্রতিবেদন :  ‘মুন্নি বদনাম হুয়ি ডার্লিং তেরে লিয়ে’। রোজগারের অন্য কোনও পথ না পেয়েই ডান্স বারে ‘বদনাম’ হতে আসেন মুন্নি, শিলারা। আর সেখানে তাঁরা হয়ে যান কার্যত  ‘পাবলিক প্রপার্টি’। যা খুশি তাই করার এক অলিখিত ছাড়পত্র দেওয়া থাকে ডান্সবারে মনোরঞ্জন করতে আসা ‘কাস্টমার’দের। এবার সেই ছাড়পত্রে পড়ল নিষেধাজ্ঞা। মুন্নি, শিলাদের ছুঁলে বা তাঁদের ওপর টাকা ছড়ালে দিতে হবে জরিমানা।

সোমবার মহারাষ্ট্রের ক্যাবিনেট সম্মতি দিল ‘ডান্স বার বিল’কে। মঙ্গলবার পাশ হবে বিল। এই বিল ডান্স বারের নর্তকিদের নিয়মিত যে শোষণের শিকার হতে হয় তা থেকে রক্ষা করবে। নর্তকিদের সঙ্গে কোন অভব্য আচরণ করলে, তাঁদের ছুঁলে বা গায়ে টাকা ছড়ালে দিতে হবে অন্তত ৫০ হাজার টাকার জরিমানা। এমনকি জেল পর্যন্ত হতে পারে। নতুন বিল অনুযায়ী প্রতিটি ডান্স বারকে ৩০ দিন পর্যন্ত রাখতে হবে যেকোনও সিসিটিভি ফুটেজ। তা না রাখলে বার মালিকের ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে। প্রয়োজনে তাঁকে ৩ বছরের জন্য জেলেও যেতে হতে পারে। শুধু তাই নয় ডান্স বারে নর্তকিদের দিয়ে কোনও অশ্লিল ভঙ্গির নাচ করানো যাবে না, পরানো যাবে না অতরিক্ত খোলামেলা পোশাক।