September 19, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

বৈধতার ছাড়পত্র পেলেন তাসকিন ও সানি

ডেস্ক: আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বোলিং করার ছাড়পত্র পেলেন পেসার তাসকিন আহমেদ ও স্পিনার আরাফাত সানি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিত ব্রিজবেনের পরীক্ষায় বাংলাদেশের এই দুই বোলারের বোলিং অ্যাকশন বৈধ প্রমাণিত হয়েছে।
শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি। ক্রিকেটপ্রেমী বাংলাদেশিদের জন্য যা সুখকর এক সংবাদ হয়ে এসেছে।
আইসিসির বৈধতা পাওয়ায় আফগানিস্তানের বিপক্ষে আসন্ন ওয়ানডে সিরিজেই মাঠে দেখা যাবে তাসকিন আহমেদকে, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পা রাখার সঙ্গে সঙ্গেই যিনি তারকাখ্যাতি পেয়েছেন।
তাসকিনের বোলিং অ্যাকশন বৈধতা পাচ্ছে এমন একটি সম্ভাবনার সংবাদ আগেই জানা গিয়েছিল। যে কারণে আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম দুটি ওয়ানডে ম্যাচের স্কোয়াড ঘোষণার ক্ষেত্রে তাসকিনের জন্য জায়গা বরাদ্দ রেখেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। ১২ জনের পরিবর্তে তাই ঘোষণা করা হয়েছিল ১৩ জনের স্কোয়াড।
বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) সেই স্কোয়াড ঘোষণার পর সংবাদ সম্মেলনে বিসিবির প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন জানিয়েছিলেন, তাসকিনের বোলিং অ্যাকশন নিয়ে ইতিবাচক ফল আসবে ধরে নিয়েই একটি জায়গা ফাঁকা রেখে ১৩ জনের স্কোয়াড দেওয়া হয়েছে।
চলতি বছর ৯ মার্চ ধর্মশালায় আইসিসি টি২০ বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ম্যাচে প্রশ্নবিদ্ধ হয় তাসকিন ও সানির বোলিং অ্যাকশন। তাদের বিরুদ্ধে ‘চাকিং’ (ডেলিভারির সময় কনুই ১৫ ডিগ্রির চেয়ে বেশি বেঁকে যায়) করার অভিযোগ ওঠে। পরে ১৫ মার্চ চেন্নাইয়ে রামাচন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষাগারে অ্যাকশনের পরীক্ষা দেন সানি ও তাসকিন। সেই পরীক্ষার ভিডিও বিশ্লেষণ করে ১৯ মার্চ বাংলাদেশের এই দুই বোলারের অ্যাকশন অবৈধ ঘোষণা করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তাদের বোলিং নিষিদ্ধ করে আইসিসি। বাংলাদেশের জন্য যা ছিল চরম দুঃখজনক সংবাদ।
অবশ্য তাসকিন ও সানিকে নিষিদ্ধ করে খোদ আইসিসিকেই সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল। আইসিসির কর্মকাণ্ডের সমালোচনামুখর হয়ে ওঠেন অনেকেই। চেন্নাইয়ের রামাচন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষাগারে তাসকিনের বোলিং অ্যাকশনের পরীক্ষায় যে প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়ে থাকে, প্রশ্ন ওঠে তার বৈধতা নিয়েই। ১৫ মার্চের পরীক্ষায় মাত্র ৩-৪ মিনিটের মধ্যে তাসকিনকে ৮-৯টি বাউন্সার দিতে বলা হয়। এর মধ্যে তিনটি বাউন্সারে অবৈধ অ্যাকশন ধরা পড়ে।
এত অল্প সময়ে একজন বোলারকে একাধিক বাউন্সার দিতে বলার বিষয়টি চরমভাবে সমালোচিত হয়েছিল। এদিকে, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে বারবার দাবি জানানো হয়েছিল যে সানির বোলিংয়ে সমস্যা থাকতে পারে, তবে তাসকিনের বোলিংয়ে কোনো সমস্যা নেই। যদিও তাতে আইসিসি সিদ্ধান্ত বদলায়নি।
গত ২১ মার্চ তাসকিনের নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আপিল করেছিল বিসিবি। তবে দুদিন পর জুডিশিয়াল কমিশনার আইসিসির আদেশ বহাল রাখেন। এরপর বোলিং অ্যাকশন শোধরাতে তাসকিন ও সানিকে নিয়ে কাজ শুরু করে বিসিবি। শেষ পর্যন্ত এর সুফল মিলেছে। আইসিসির ছাড়পত্র নিয়ে ফের মাঠ মাতাতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছেন দুই টাইগার ক্রিকেটার তাসকিন ও সানি।