September 18, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

ইয়াহু’র ৫০ কোটি গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্য চুরি করেছে হ্যাকাররা

ডেস্ক: প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ইয়াহু নিশ্চিত করেছে হ্যাকাররা সংস্থাটির ৫০ কোটি গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্য চুরি করেছে। হ্যাকাররা গ্রাহকের নাম, ইমেইল অ্যাড্রেস, জন্ম তারিখ, টেলিফোন নম্বর এবং পাসওয়ার্ড চুরি করেছে বলে জানানো হয়েছে।তথ্য-প্রযুক্তির বৃহত্ এই প্রতিষ্ঠানটির প্রায় ১শ কোটি গ্রহক রয়েছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের সংবাদ অনুযায়ী ২০১৪ সালে এই ঘটনা ঘটেছে।
মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার বরাত দিয়ে রয়টার্স উল্লেখ করেছে, ‘রাষ্ট্রীয় মদদে’ এ ধরনের ঘটনা ঘটানো হতে পারে। আগের হ্যাকিং এর সাথে মিল থাকায় এবারের হ্যাকিং এর ঘটনায় রাশিয়ার সম্পৃক্ততা থাকতে পারে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে মার্কিন গোয়েন্দারা রয়টার্সকে বলছেন, তারা ধারণা করছেন, হয়তো রাশিয়ার গোয়েন্দা সংস্থা এ কাজ করেছে, নয়তো হ্যাকাররা তাদের নির্দেশনা মেনে এ কাজ করেছে।
তবে ইয়াহু কর্তৃপক্ষ বলেছে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্তে এখন পর্যন্ত কোনো দেশের সম্পৃক্ত থাকার তথ্য প্রমাণ মেলেনি। তাই কোনো রাষ্ট্রের নাম উল্লেখ করেনি ইয়াহু। গ্রাহকদের অতি সত্বর তাদের পাসওয়ার্ড পরিবর্তনের আহ্বান জানিয়েছে ইন্টারনেট পোর্টালটি। এই ঘটনাটিকে বলা হচ্ছে ইতিহাসের সবচেয়ে বড় সাইবার হামলার ঘটনা। গেলো আগস্টে ‘পিস’ নামের একটি হ্যাকার গ্রুপ ইয়াহুর ২০ কোটি ব্যবহারকারীর তথ্য বিক্রয় করতে চাইলে বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজরে আসে। এ বছরের জুলাই মাসেই যুক্তরাষ্ট্রের টেলিকম কোম্পানি ভেরাইজোন ৪৮৩ কোটি ডলারে ইয়াহুকে কিনে নেয়। ভেরাইজোন বলছে, দুইদিন আগে পর্যন্ত তারা এ বিষয়ে কিছুই জানতো না।
এ ঘটনা তদন্তে ইতোমধ্যে কাজ শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই। তবে, ইয়াহু অ্যাকাউন্টের বিপরীতে করা কিংবা এর সাথে সম্পর্কিত ব্যাংক অ্যাকাউন্ট বা ক্রেডিট কার্ডের তথ্য হ্যাকাররা চুরি করতে পারেনি বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে ইয়াহু।
ইতিহাসের সবচেয়ে বড় হ্যাকিং এর ঘটনায় ভাবিয়ে তুলছে প্রযুক্তিবিদদের। তারা ইয়াহুর পোর্টালটির বিভিন্ন দুর্বলতার দিকও তুলে ধরেছেন। সাধারণত ইয়াহুর অ্যাকাউন্ট তৈরি করার জন্য ব্যবহারকারী নিজেই প্রশ্ন এবং নিজেই উত্তর তৈরি করেন। ফলে নিরাপত্তার বিষয়ে এটি দুর্বলতা হিসেবে দেখা হচ্ছে। কেননা, একই ধরনের প্রশ্ন উত্তর মনে রাখার স্বার্থে ব্যবহারকারীরা অন্যান্য পোর্টালেও ব্যবহার করে থাকেন।
ইয়াহুর এক সাবেক কর্মকর্তা রয়টার্সকে বলেছেন, অনেক সময় একই ধরনের প্রশ্ন-উত্তর একাধিক অ্যাকাউন্টে ব্যবহার করা হয়। বিশেষ করে ভুয়া আইডি বানানোর ক্ষেত্রে এ ধরনের ঘটনা ঘটে বলে তিনি উল্লেখ করেন। বিশ্বের অন্যতম বৃহত্ ব্যবহারকারী হলেও ইয়াহু পোর্টালটির নিরাপত্তা সেরকম জোরদার নয় বলেও অনেকে অভিযোগ করেন। কোন্ কোন্ অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়েছে তার একটি তালিকা শিগগির প্রকাশ করবে বলে ইয়াহু জানিয়েছে।