September 28, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

স্মার্টকার্ড বিতরণ শুরু

ডেস্ক:  বহুল কাঙ্ক্ষিত উন্নতমানের জাতীয় পরিচয়পত্র অর্থাৎ মেশিনে রিডেবল স্মার্টকার্ড বিতরণ শুরু হয়েছে আজ সোমবার সকাল ৯টা থেকে। প্রাথমিকভাবে রাজধানী ঢাকার দুটি এলাকা ও কুড়িগ্রাম জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে আজ থেকে শুরু হলো এ কার্ড বিতরণ।

আগে আসলে আগেই পাবেন এমন ভিত্তিতে দেওয়া হচ্ছে স্মার্ট কার্ড। ১০ আঙ্গুলের ছাপ ও চোখের আইরিশের প্রতিচ্ছবি নেওয়ার পর পুরনো আইডি কার্ড জমা নিয়ে স্মার্ট কার্ড দেওয়া হচ্ছে।

এরআগে নিজের স্মার্টকার্ড নিয়ে রবিবার স্মার্টকার্ড বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ থেকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ১ নম্বর ওয়ার্ড (উত্তরা) এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটির ১৯, ২০ ও ২১ নম্বর ওয়ার্ডে (রমনা এলাকা) স্মার্ট কার্ড বিতরণ করা হবে। উত্তরায় স্মার্ট কার্ড বিতরণ করা হবে ৩ থেকে ২২ অক্টোবর পর্যন্ত। দক্ষিণ সিটির ১৯ নম্বর ওয়ার্ডে ৩ অক্টোবর থেকে ১০ অক্টোবর, ২০ নম্বরে ১৩ থেকে ২০ অক্টোবর এবং ২১ নম্বর ওয়ার্ডে ২২ থেকে ২৬ অক্টোবর পর্যন্ত কার্ড বিতরণ করা হবে।

এছাড়াও কুড়িগ্রাম জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে এ কার্ড বিতরণ শুরু হচ্ছে আজ।

নির্বাচন কমিশন (ইসি) প্রায় ১০ কোটি নাগরিককে এই স্মার্ট কার্ড দেবে। পর্যায়ক্রমে জেলা, উপজেলা, পৌরসভা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডে স্মার্ট কার্ড বিতরণ করা হবে।

বর্তমানে দেশে ভোটার সংখ্যা প্রায় ১০ কোটি। আট বছর আগে ৮ কোটি ১০ লাখ ৫৮ হাজার ৬৯৮ নাগরিকের মধ্যে প্রথম জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ করা হয়েছিল। কিন্তু কিছু অসাধু লোক ওই পরিচয়পত্র নকল করেছিলো। মেশিন রিডেবল স্মার্টকার্ড এ ধরনের জালিয়াতি প্রতিরোধ করবে। স্মার্টকার্ডের নিরাপত্তা বজায় রাখার জন্য ২৫টি আন্তর্জাতিক সার্টিফিকেশন এবং মান নিশ্চিত করা হয়েছে।

সংশ্লি­ষ্ট কর্মকর্তারা জানান, ভুয়া পরিচয়পত্র প্রতিরোধে কার্যকরি স্মার্টকার্ড। এই স্মার্টকার্ড ব্যবহারে চাকরির আবেদন, ভোটার শনাক্তকরণ, ব্যাংক হিসাব খোলা, পাসপোর্ট তৈরি, ই-গভর্নেন্স, ই-পাসপোর্ট সেবাসহ ২৫ ধরনের সেবা গ্রহণ করা যাবে। এর বিশেষত্ব হলো, স্মার্টকার্ডটি অনলাইনে ও অফলাইনে দু’ভাবেই ভেরিফিকেশন করা যাবে। এতে নাগরিকের সব তথ্য সংবলিত মাইক্রোচিপস থাকবে। বিতরণ প্রস্তুতি শেষ করতে পারেনি ইসি !

স্মার্ট কার্ডে ব্যক্তির নাম (বাংলা ও ইংরেজি), পিতা/মাতার নাম, জন্মতারিখ ও জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন নম্বর দৃশ্যমান থাকবে। কার্ডের পেছনে থাকবে ব্যক্তির ভোটার এলাকার ঠিকানা, রক্তের গ্রুপ ও জন্মস্থান। তবে সব মিলিয়ে স্মার্ট কার্ডের মধ্যে থাকা চিপ বা তথ্যভাণ্ডারে ৩২ ধরনের তথ্য থাকবে, যা মেশিনে পাঠযোগ্য হবে।