September 19, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

শুভ জন্মদিন মাশরাফি ও সাহেল

ডেস্ক : বাংলাদেশ ওয়ানডে ও টি২০ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক, নড়াইল এক্সপ্রেস খ্যাত মাশরাফি বিন মর্তুজার জীবনের একটি স্মরণীয় দিন হলো ৫ অক্টোবর। এই দিনেই তিনি পৃথিবীতে এসেছিলেন। বছর গড়িয়ে বছর আসে। এভাবেই জীবন থেকে চলে গেছে ৩৩টি বছর। অধিনায়ক ৩৪ বছরে পা দিয়েছেন।

মাশরাফির জন্ম ১৯৮৩ সালের ৫ অক্টোবর নড়াইল শহরের মহিষখোলায়। তার বাবার নাম গোলাম মর্তুজা স্বপন এবং মাতার নাম হামিদা বেগম বলাকা। দুই ভাইয়ের মধ্যে মাশরাফি বড়। ছোট ভাই সিজার মাহমুদও ক্রিকেট নিয়েই সময় কাটান। মাশরাফি বিয়ে করেছেন তার বাসা থেকে এক কিলোমিটার দূরে আলাদাতপুরে। তার স্ত্রীর নাম সুমনা হক সুমি।

২০০১ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে মাশরাফির। অভিষেকেই তিনি এক ইনিংসে নিয়েছিলেন ৪ উইকেট। আর তিনিই একামাত্র ক্রিকেটার যিনি কোন প্রথম শ্রেণির ম্যাচ না খেলেই টেস্টে অভিষিক্ত হন। একই বছর ২৩ নভেম্বর মাশরাফির ওয়ানডে ম্যাচে অভিষেক ঘটে। ওই ম্যাচে তিনি ৮.২ ওভার বল করে নিয়েছিলেন ২ উইকেট।

তারপর একে একে নিজের চমকপ্রদ পারফরম্যান্স দিয়ে মাশরাফি সবাইকে মুগ্ধ করতে থাকেন। আর এভাবেই তিনি এখন বাংলাদেশ ক্রিকেটের আইকন। তবে ক্রিকেটে ক্যারিয়ারে ইনজুরি তার নিত্যসঙ্গী হয়ে রয়েছে। নিজের তৃতীয় টেস্টেই হাঁটুতে আঘাত পেয়ে অস্ত্রোপচার করাতে হয়। যার ফলে প্রায় ২ বছর তাকে মাঠের বাইরে কাটাতে হয়েছে। এরপর মাঠে ফিরে আবার ইনজুরিতে পড়ে এক বছরের জন্য মাঠের বাইরে ছিটকে পড়েন। আর এখন ইনজুরির সঙ্গে সখ্য করেই চলছে তার ক্রিকেট খেলা।

এছাড়া জুনিয়র মাশরাফি অর্থাৎ মাশরাফির ছেলে সাহেলেরও ২য় জন্মদিন বুধবার (৫ অক্টোবর)। ২০১৪ সালের এই দিনে পৃথিবীতে এসেছিলেন মাশরাফির দ্বিতীয় সন্তান সাহেল। সাহেল দুই বছর পেরিয়ে এখন তিনবছরে পা দিয়েছে। বাবা ও ছেলের একই দিনে জন্ম। আর এই যৌথ জন্মদিনকে ঘিরে মাশরাফি ভক্তদের মাঝে চলছে উৎসবের আমেজ। দিনব্যাপী আয়োজন করেছে নানা অনুষ্ঠানের।

বাংলাদেশের এ আইকন ক্রিকেটারের এটা ৩৩তম জন্মদিন হলেও এর আগে কখনো আনুষ্ঠানিকভাবে জন্মদিন পালন করা হয়নি। তবে এ বছর মাশরাফির ভক্তরা জন্মদিন উপলক্ষে দিনব্যাপী নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, কেক কাটা, ভ্রাম্যমাণ লাইব্রেরি উদ্বোধন, আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ইত্যাদি।

মাশরাফি ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা সৈয়দ খায়রুল ইসলাম জানান, অধিনায়ক মাশরাফি ও জুনিয়র মাশরাফির জন্মদিন পালন উপলক্ষে বুধবার বিকেলে জেলা পাবলিক লাইব্রেরিতে কেক কাটা, আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন নড়াইল জেলা প্রশাসক মো. হেলাল মাহমুদ শরীফ।

নড়াইল সদর উপজেলার বিছালী এলাকার চন্দন বিশ্বাস জানান, শতগুণে গুণান্বিত অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার জন্মদিনে বিছালী এলাকায় একটি ভ্রাম্যমাণ লাইব্রেরি চালু করা হচ্ছে। এছাড়া জন্মদিন উপলক্ষে কেক কাটাসহ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

জেলা ক্রীড়া সংস্থার কর্মকর্তা সৈয়দ তারিকুল ইসলাম শান্ত জানান, জন্মদিন উপলক্ষে বিকাল ৫টায় বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ স্টেডিয়াম থেকে র‌্যালি বের করা হবে। এছাড়া কেক কাটাসহ জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে দিনটি পালন করা হবে।

এদিকে ছেলে ও নাতির জন্মদিনে দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন মাশরাফির মা। তিনি জানান, মাশরাফি এখন ঢাকায় ক্রিকেট খেলা নিয়ে ব্যস্ত রয়েছে। মাশরাফি যাতে সুস্থ থাকতে পারে এবং আগামী দিনগুলোতে দেশের জন্য সুনাম বয়ে আনতে পারে সে জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন। পাশাপাশি মাশরাফির ছোট ভাই সিজার মাহমুদ টাইফয়েড এ আক্রান্ত হওয়ায় তার জন্যও দোয়া চেয়েছেন। একইসাথে ছেলে মাশরাফি ও নাতি সাহেলের জন্মদিন হওয়ায় তিনি ভীষণ খুশি। মাশরাফি ও তার সন্তানসহ দেশের সকল ক্রিকেটারের জন্য তিনি দোয়া চেয়েছেন।

জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান মিকু বলেন, মানবিক গুণাবলী সম্পন্ন মাশরাফিকে নিয়ে আমরা গর্ব করি। তার বিচক্ষণতা, সরলতা, ভদ্রতা, দেশপ্রেমসহ অসংখ্য গুণে গুণান্বিত মাশরাফি বিন মর্তুজা যেন সুস্থভাবে ক্রিকেট খেলতে পারেন, আগামীতে মাশরাফির নেতৃত্বে বাংলাদেশ ক্রিকেটে চ্যাম্পিয়ন হবে এই প্রত্যাশা রইল জন্মদিনে। শুভ জন্মদিন।