September 17, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

চীনের প্রেসিডেন্টের সফরে ১০ চুক্তি

ডেস্ক :  আগামী ১৪ অক্টোবর (শুক্রবার) বাংলাদেশে আসছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিন পিং। তার সফরে সময় ৩টি সমঝোতা স্মারক, ৪টি ফ্রেমওয়ার্ক এগ্রিমেন্ট এবং ৩টি প্রকল্প অর্থাৎ মোট ১০টি চুক্তি চূড়ান্ত করেছে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি)।

এরমধ্যে একটি সমঝোতা চুক্তির আওতায় ২৮টি প্রকল্প যুক্ত করা হয়েছে বলে ইআরডির একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

ইআরডির দায়িত্বশীল একাধিক কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা কোন মন্তব্য করেননি। তবে সংস্থাটির দায়িত্বশীল একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে এসব বিষয় নিশ্চিত করেছেন।

ইআরডির ওই কর্মকর্তা জানায়, প্রজেক্ট অব ব্রিজ কনস্ট্রাকশন বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারক, প্রজেক্ট অব ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট এবং স্ট্রেনদেনিং ইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড প্রডাকশন ক্যাপাসিটি বিষয়ে তিনটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হবে।

এর মধ্যে স্ট্রেনদেনিং অ্যান্ড প্রডাকশন ক্যাপাসিটির আওতায় ২৮টি প্রকল্প যুক্ত থাকবে। বুধবার (১২ অক্টোবর) পর্যন্ত এসব প্রকল্পের তালিকা চূড়ান্ত করা হয়েছে। এ প্রকল্প বাস্তবায়নে প্রায় ২৫ বিলিয়ন ডলার প্রয়োজন হবে। এছাড়া ফ্রেমওর্য়াক এগ্রিমেন্ট হিসেবে এগ্রিমেন্ট অন ইকোনোমিক অ্যান্ড টেকনিক্যাল কো-অপারেশন ফর ১০০০ মোটর সাইকেল অ্যান্ড ডিজাস্টার সেন্টার, প্রকিউরমেন্ট অব সিক্স ভেসেল, দাসেরকান্দি স্যুয়ারেজ ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট এবং কর্ণফুলী ট্যানেল প্রকল্প স্বাক্ষরিত হবে।

ঋণ চুক্তি স্বাক্ষরিত হবে কর্ণফুলী ট্যানেল নির্মাণ প্রকল্প, সিক্স ভ্যাসেল এবং দাসেরকান্দি স্যুয়ারেজ ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট প্রকল্পে অর্থায়নের জন্য।

এর বাইরে বিভিন্ন প্রকল্পে অর্থায়নের বিষয়ে আলোচনা হবে। ইতোমধ্যে বিদ্যুৎ খাতের ২২ প্রকল্পের জন্য ২৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের সহায়তা প্রস্তাব দিয়েছে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়। এছাড়া তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতে ১০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের সহায়তা জন্য প্রস্তাব দিয়েছে ডাক ও টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়। এ খাতে একটি ফ্রেমওয়ার্ক এগ্রিমেন্ট, দুটি সমঝোতা স্মারক ও একটি প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনেরও প্রস্তাব রয়েছে।

চীনের প্রেসিডেন্টের এই সফরে চট্টগ্রামে কর্ণফুলী টানেল প্রকল্পের উদ্বোধন করা হবে।এছাড়া বেশ কয়েকটি প্রকল্প ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করার কথা রয়েছে।

কর্ণফুলী ট্যানেলে শর্তে অনড় চীন

চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেল নির্মাণে সহায়তা দিচ্ছে চীন। কিন্তু এক্ষেত্রে ৫টি শর্ত দেওয়া হয়েছিল চীনের পক্ষ থেকে। এই শর্ত কমাতে ৮ সদস্যের নেগোসিয়েশন টিম গঠন করে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি)। গত ২৯ সেপ্টেম্বর চীনের এক্সিম ব্যাংকের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক করে এই টিম।

ব্যাপক আলোচনার পর শুধুমাত্র ম্যানেজমেন্ট ফি শূন্য দশমিক ২৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে শূন্য দশমিক ২ শতাংশ করেছে। অন্য শর্তগুলো চেষ্টার পরেও কমানো যায়নি। চীনের দেওয়া শর্তগুলো হচ্ছে-সুদের হার ২ শতাংশ, ঋণ পরিশোধের সময় ৫ বছরের গ্রেস পিরিয়ডসহ ২০ বছর, ম্যানেজমেন্ট ফি শূন্য দশমিক ২৫ শতাংশ, কমিটমেন্ট ফি শূন্য দশমিক ২৫ শতাংশ এবং চুক্তি কার্যকর হওয়ার ৩০ দিনের মধ্যে ম্যানেজমেন্ট ফি বাবদ ৭ লাখ ৫০ হাজার ডলার দিতে হবে।