1
February 25, 2021

দৈনিক প্রথম কথা

বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিক

খারাপ সময় হল এক ধরনের ধৈর্য পরীক্ষা

আলী আসগর স্বপনঃ বিপদে যেমন বন্ধু চেনা যায় ঠিক তেমন নিজকেও চেনা যায়। আপনি কতটা ভেঙ্গে পড়লেন আর কতটা শক্ত থাকলেন, নিজেকে এই সময়টাতেই সবচেয়ে বেশী চেনা যায়।খারাপ সময় হল এক ধরনের ধৈর্য পরীক্ষা। যারা ধৈর্য ধরতে জানে তারাই আসলে পাশ করে।
হাল ছেড়ে দেবার অর্থ হল নিজেকে ছেড়ে দেয়া। নিজের খারাপ সময়ে নিজেই যদি নিজেকে ছেড়ে চলে যান তাহলে কীভাবে আশা করবেন যে অন্যরা আপনার পাশে থাকবে ?
ডুবন্ত মানুষকে যখন জাহাজের উপর থেকে দাড়িয়ে হাত দিয়ে তোলার চেষ্টা করা হয় তখন ডুবন্ত মানুষটাকেও হাত বাড়াতে হয়।আপনি যদি নিজেই নিজেকে সাহায্য না করেন তাহলে কেউই আপনাকে এই যাত্রা থেকে উদ্ধার করতে পারবে না।
ঘুরে দাড়াবার কথা দিয়ে কথা রাখেননি, লেগে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়ে পালিয়ে গা বাঁচালেন, স্বপ্ন পূরণ করার জন্য পরিশ্রম করতে না পারলে খামাখা নিজেকে এত স্বপ্ন দেখালে কেন ? আপনি যদি নিজেই নিজের সাথে প্রতারণা করেন তাহলে কীভাবে আশা করবেন যে অন্যরা আপনার সাথে প্রতারণা করবে না ?
আপনি নিজেই তো আপনার যত্নটা ঠিক ভাবে নিতে পারছেন না। শুধু প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাই শিক্ষা বা জ্ঞান নয়। যে মস্তিষ্কটা আল্লাহ আপনাকে দিয়েছেন সেটা কখনো নাড়িয়ে চড়িয়ে দেখার সময় হয়েছে আপনার? মস্তিস্কটা কতটুকু সঠিক কাজে লাগিয়েছেন। স্রেফ অবহেলা করেছেন আর নিজেকে বেঈমানি করেছেন নিজের সঙ্গে আপনার মস্তিস্কের সাথে।
নিজের প্রতি এতসব উদাসীনতা থাকা স্বত্বেও আপনি কীভাবে নিজকে ভালোবাসার দাবী করবেন? আর কেউ এতবার বিশ্বাস ভাঙ্গে নি যতবার আপনি নিজেই ভেঙ্গেছেন। যতদিন পর্যন্ত আপনি নিজেকে ভালোবাসতে পারবেননা ততদিন পর্যন্ত অন্যকারো কাছে ভালোবাসা পাবার আশা, অধিকার করা পৃথিবীর কাছে নিষ্ঠুরতম অনাধিকার চর্চা।
কেউ আপনাকে বারবার হাত ধরে তুলবেনা আপনাকে বিশ্বাসই করবে না।সবার কাছে উপহাসের পাত্র হবেন। এতদিনে সবাই আপনাকে চিনে যাবে।আপনার সম্পর্কে যেনে যাবে। সময় যখন ফুরিয়ে যাবে তখন আর কিছুই করার থাকবে না। কেউ বলে জীবনটা মস্ত বড়।খাও দাও ফুর্তি করো।আবার কারো কাছে জীবন এত ছোট কেন? কিছুই তো করা হলো না।